রংপুরকে তুলতে ম্যাককালাম-গেইলও ‘ফেইল’

ক্রীড়াঙ্গন রিপোর্ট :
নিজেদের প্রথম ম্যাচে জয়ের পর টানা দুই হারে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে চলে যায় মাশরাফি বিন মুর্তজার দল রংপুর রাইডার্স। দলের এমন নাজেহাল অবস্থা দেখে আগেভাগেই ম্যাককালাম-গেইলকে উড়িয়ে আনে তারা। লক্ষ্য একটাই, যে করে হোক জয়ে ফেরা। কিন্তু সেই একই চিত্র। হার নিয়েই ফিরতে হলো।
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ২০তম ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের কাছে ১৪ রানের পরাজয় বরণ করল তারকাঠাসা রংপুর। মিরপুরে টস হেরে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৫৩ রান সংগ্রহ করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। জবাবে ১৩৯ রান সংগ্রহ করে রংপুর।
পারলেন না গেইল-ম্যাককালাম! প্রথম ম্যাচে দর্শকদের হতাশার সাগরে ডোবালেন টি-টোয়েন্টির এই দুই মারকুটে ব্যাটসম্যান। গেইল করলেন ১৭ আর ম্যাককালামের ব্যাট থেকে জমা পড়ে ১৩ রান। চার-ছক্কার ফরম্যাটে দুই জনের রান একত্র করলে নূন্যতম অর্জন অর্ধশতকের ধারেকাছেও যাবে না। ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মাঝে খানিকটা লড়েছেন রবি বোপারা এবং মোহাম্মদ মিথুন। যদিও মিথুনের ৩১, বোপারার ৪৮* রান রংপুরের হারের ব্যবধান কমায় মাত্র।
কুমিল্লার পক্ষে ২টি করে উইকেট শিকার করেছেন মেহেদী হাসান, রশিদ খান। ১টি করে উইকেট ঝুলিতে পুরেছেন আল-আমিন হোসেন এবং হাসান আলী।
এর আগে মিরপুরে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ হয় কুমিল্লার। নেমেই নিয়মিত বিরতিতে বাউন্ডারি হাঁকাতে থাকেন ওপেনার তামিম ইকবাল। কিন্তু আশা জাগিয়ে ফিরে যান তামিম। ১৯ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ২১ রান এসেছে তামিমের ব্যাট থেকে।
এরপর ইমরুল-লিটন দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন। ব্যক্তিগত ১১ রান করে লিটন বিদায় নিলে সে চেষ্টাও নিঃশেষ হয়ে যায়। মিডল অর্ডারে ব্যাট করতে নামা জস বাটলার রানের খাতা খুলেই সাজঘরে ফিরে যান। তবে মারলন স্যামুয়েলস-ইমরুল কায়েস মিলে কুমিল্লার রানের চাকা সচল রাখেন।
৪১ রান করে আউট হয়েছেন স্যামুয়েলস। ইমরুল উপহার দেন ৪৭ রানের ইনিংস। শেষদিকে ১ চার ১ ছয়ে ১৬ রান যোগ করেন সাইফুদ্দিন। রংপুরের হয়ে ২টি করে উইকেট শিকার করছেন মাশরাফি এবং পেরেরা। খালি হাতে ফেরেননি রুবেল।