সিলেট জেলা পরিষদ ১নং ওয়ার্ডের নির্বাচন বাতিল চেয়ে নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের

সদস্য স্বপন বর্মণ সিলেট জেলা পরিষদ ১নং ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার লক্ষ্যে ১ ডিসেম্বর ২০১৬ মনোনয়নপত্র দাখিল করেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারের নিকট। ৩ ডিসেম্বর যাচাই-বাচাইয়ে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার উক্ত মনোনয়নপত্র বাতিলের আদেশ দেন। এ আদেশের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আপীল কর্তৃপক্ষ ও বিভাগীয় কমিশনার সার্বিক আদালতে আপীল দায়ের করলে তা না মঞ্জুর করেন। পরবর্তীতে এ আদেশের বিরুদ্ধে মহামান্য হাইকোর্টে ১৫৮২২ রিট মামলা দাখিল করলে মহামান্য হাইকোর্ট ১৫ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্রটি গ্রহণ করে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন। পরবর্তীতে প্রার্থীকে বালতি প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। প্রচারণা চলাকালীন সময়ে হঠাৎ ২২ ডিসেম্বর অনিবার্য কারণবশত তা স্থগিত করা হয়। পরবর্তীতে জানা যায়, প্রধান নির্বাচন কমিশন ১৫ ডিসেম্বরের আদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিমকোর্টের আপীল বিভাগের মামলা দায়ের করলে ৮ জানুয়ারী ২০১৭ প্রধান বিচারপতি ব্রাঞ্চ ৪ সপ্তাহের মধ্যে উক্ত মামলার নিষ্পত্তির নিদের্শ দেন মহামান্য হাইকোর্ট ডিভিশনকে এবং উক্ত নির্বাচনী কার্যক্রম স্থগিত করেন।  বিগত ৩১ জানুয়ারী মামলাটির শুনানির জন্য কসট লিস্টে থাকায় আইনজীবী উপস্থিত না থাকায় মামলাটি খারিজ করে দেন। পরবর্তীতে মামলাটি পুন:শুনানীর জন্য মহামান্য প্রধান বিচারপতি নিকট আবেদন করলে বিচারপতি তা মহামান্য হাইকোর্ট ডিভিশনের ২৬নং কোর্টে প্রেরণ করেন। যা ২৮ মে শুনানীর জন্য ধার্য্য ছিল। বিগত ২১ মে লোকমুখে শুনতে পারি সিলেট জেলা পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের নির্বাচন ২৩ মে ধার্য্য করা হইয়াছে। বিগত ২২ মে মহামান্য হাইকোর্ট ডিভিশনে প্রার্থীর বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য ২৮ মে ধার্য আছে উল্লেখ করিয়া জেলা প্রশাসক ও রিটানিং অফিসার বরাবের ২৩ তারিখের নির্বাচনটি স্থগিত করে নির্বাচনটি ১ সপ্তাহ পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন জানানোর পরও নির্বাচনটি হয়ে যাওয়ায় বিগত ২ জুলাই নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে ১নং ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে নির্বাচনটি বাতিল চেয়ে মামলা করলে ৬ জুলাই মামলাটি গ্রহণীয়তা নিয়ে শুনানীতে মামলাটি গ্রহণ করেন নির্বাচন ট্রাইব্যুনাল ও যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালত সিলেট। বিজ্ঞপিপ্ত