ফেঞ্চুগঞ্জে চাঞ্চল্যকর সুনাম হত্যাকাণ্ড ॥ ১৪ দিন পেরিয়ে গেলেও আসামীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে

ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার পিটাইটিকর গ্রামের আলোচিত সুনাম হত্যাকান্ডের ১৪ দিন হলেও এখনো আসামিরা অধরা।
নিহত সুনামের পিতা আব্দুল আহাদ লেচু মিয়া ফেঞ্চুগঞ্জ থানায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে হত্যা মামলা দায়ের করলেও অজ্ঞাত কারনে এখনো কোন আসামি গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।
এ নিয়ে হতাশা বিরাজ করছে নিহতের পরিবার ও জনমনে।
মামলায় আসামিরা হলেন- উপজেলার পিঠাইটিকর গ্রামের মৃত আব্দুর রউফের পুত্র শিব্বির আহমদ (৫০) ও জুবায়ের আহমদ (৪৫)। শিব্বির আহমদের পুত্র টুনু মিয়া, নাসিম মিয়া (২২) তানিম মিয়া (১৮) এবং আব্দুশ শহীদ দুলু মিয়ার পুত্র রিমন মিয়া (২১)।
নিহত সুনাম মিয়ার পিতা আব্দুল আহাদ লেচু মিয়া বলেন, আমার ছেলেকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু কোন আসামি ধরছে না পুলিশ। ছেলেও হারালাম এবার কি বিচারও পাবো না?
সুনাম হত্যাকান্ডের বিচারের দাবিতে এলাকায় মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা হয়। তাতে অধরা আসামি নিয়ে সবাই অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।
হত্যাকান্ডের পাশের ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার ফুটেজে ৫ আসামির একজন কে চেনা গেলেও তাকেও খোজে পাচ্ছে না পুলিশ।
এ ব্যাপারে ফেঞ্চুগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ নাজমুল হক বলেন, আসামি গ্রেফতারের কাজ চলছে।
ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার ফুটেজের ব্যাপারে তিনি বলেন, আসামি গ্রেফতারের স্বার্থে এ ফুটেজের বিস্তারিত বলা যাচ্ছে না।
প্রসঙ্গত গত ২৪ শে আগস্ট সুনাম মিয়া বন্ধুদের সাথে বের হয়ে আর ফিরেন নি। পরেরদিন ২৫ শে আগস্ট ফেঞ্চুগঞ্জ পুর্ববাজারের পরিত্যক্ত ভূমি অফিসের একটি কক্ষ থেকে সুনাম মিয়া (২১) এর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
নিহত সুনামের শরীরে নানা আঘাত ছিল। প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হয় দেশীয় অস্ত্রের আঘাত ও শ্বাসরুদ্ধ করে সুনাম কে হত্যা করা হয়। (খবর সংবাদদাতার)