সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় ॥ নভেম্বর থেকে পুরো মাস ক্যাথল্যাব চালু থাকবে

স্টাফ রিপোর্টার :
সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল একটি অলাভজনক ও সেবামূলক প্রতিষ্ঠান সিলেট শহরের পূর্ব শাহী ঈদগায় সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়, প্রবাসী, বিভিন্ন ব্যাক্তিবর্গ ও প্রতিষ্ঠানের অর্থায়নে ১০০ শয্যা বিশিষ্ট ১০ম তলা ফাউন্ডেশনের ৬ষ্ঠ তলা ভবনের নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে ইতি মধ্যেই। গত আগস্ট ২০১৬ থেকে উক্ত হাসপাতালে ক্যাথল্যাব স্থাপনের মাধ্যমে অভিজ্ঞ কার্ডিওলজিষ্ট দ্বারা হৃদরোগীদের এনজিওগ্রাম/এনজিওপ্লাস্টি/পেসমেকার স্থাপন করা হয়ে থাকে। গতকাল দুপুরে সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে সিলেটে কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডাঃ মোঃ আমিনুর রহমান লস্কর এ কথা বলেন। তিনি বলেন
বর্তমানে এই হাসপাতালে ১০ বেডের সিসিইউ ইউনিট, ২২ বেডের পিসিসিইউ ইউনিট, ১০ টি কেবিন রয়েছে। তাছাড়া রোগীদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য উন্নত মানের প্যাথলজি ল্যাব, এই হাসপাতালে এক্স-রে, ইসিজি, ইকো কার্ডিওগ্রাফি, ইটিটি, আলট্রাসনোগ্রাফি করার ব্যবস্থা আছে। তিনি বলেন সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে হৃদরোগীদের চিকিৎসা ব্যবস্থায় যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসাবে চলতি মাস থেকে ঢাকা ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল এন্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের সিনিয়র কার্ডিওলজিষ্টগণ পর্যায়ক্রমে নিয়মিতভাবে হাসপাতালে হৃদরোগ বিষয়ক চিকিৎসা সেবা প্রদানসহ এনজিওগ্রাম/এনজিওপ্লাস্টি/পেসমেকার স্থাপনসহ সকল প্রকারের সেবা প্রদান করবেন। ডাঃ মোঃ আমিনুর রহমান লস্কর বলেন হৃদরোগের চিকিৎসা অত্যন্ত ব্যয়বহুল তদুপরি সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল অত্যন্ত স্বল্প খরচে চিকিৎসা সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন।
ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন সিলেট এর পাবলিসিটি সেক্রেটারী আবু তালেব মুরাদের পরিচালনায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহসভাপতি এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী, ডাঃ মোঃ আলতাফুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক এডভোকেট আফম কামাল, ট্রেজারার জামিল আহমদ চৌধুরী, হিউম্যান রিসোর্স ডেভলাপমেন্ট সেক্রেটারী ডাঃ মোঃ মঞ্জুরুল হক চৌধুরী, কার্যকরী কমিটির সদস্য ডাঃ মোস্তফা শাহজামান চৌধুরী বাহার এবং আব্দুল মালিক জাকা ও হাসপাতালের পরিচালক এবং সিইও কর্ণেল (অব:) শাহ আবিদুর রহমান।
মতবিনিময় সভায় বিভিন্ন প্রশ্ন এবং সিলেট ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালের অগ্রগতি নিয়ে মতামত ব্যক্ত করেন সিলেট প্রেস ক্লাবের সভাপতি ইকরামুল কবির, দৈনিক যুগান্তরের সিলেট প্রতিনিধি আব্দুর রশিদ রেনু, অনলাইন মিডিয়ার সভাপতি মুহিত চৌধুরী, সিনিয়র ফটো সাংবাদিক আতাউর রহমান আতা, ফাইন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেসের প্রতিনিধি ইকবাল ছিদ্দিকী, দৈনিক জালালাবাদের নির্বাহী সম্পাদক আবদুল কাদের তাপাদার, ইউএমবিএর প্রতিনিধি ছিদ্দিকুর রহমান, টেলিভিশন সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কামকামুর রাজ্জাক রুনু, দৈনিক সংগ্রাম এর ব্যুরো প্রধান কবির আহমদ, ঢাকা ট্রিবিউন এর মোঃ সিরাজুল ইসলাম, দৈনিক কালের কণ্ঠ এর স্টাফ রিপোর্টার ইয়াহইয়া ফজল, দি নিউ নেশন এর প্রতিনিধি এস এ শফিক, দৈনিক কাজির বাজার এর স্টাফ রিপোর্টার জেড এম শামসুল, দৈনিক উত্তর পূর্বের স্টাফ রিপোর্টার শাহ নেওয়াজ তালুকদার, দৈনিক সিলেট নিউজ ৭১ এর উপদেষ্টা সম্পাদক মোঃ আমিরুল ইসলাম চৌধুরী এহিয়া, সিলেট অনলাইন প্রেস ক্লাবের সহসাধারণ সম্পাদক সাইফুর তালুকদার এবং ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক মোঃ ছমর উদ্দিন মানিক।