আয়-ব্যয়ের হিসাব দিতে সময় পেল আ’লীগ

কাজিরবাজার ডেস্ক :
ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগসহ সাতটি দল নির্ধারিত সময়ে হিসাব জমা দিতে না পারায় তাদেরকে আরও ১৫ দিন সময় দিয়েছে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। দেশের নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর ২০১৭ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে জমা দিতে বলেছিল সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি।
ইসির উপসচিব মো. আব্দুল হালিম খান গণমাধ্যমকে জানান, ৩৯টি নিবন্ধিত দলের মধ্যে সাতটি দল নানা কারণে যথাসময়ে অডিট রিপোর্ট জমা দিতে পারেনি। এজন্য তারা বাড়তি সময় চেয়েছিল। কমিশন তাদেরকে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে অডিট রিপোর্ট জমা দেয়ার জন্য সময় অনুমোদন করেছে।
সোমবার (৬ আগষ্ট) থেকে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে অডিট রিপোর্ট জমা দিতে হবে। অডিট রিপোর্ট জমা দেয়ার জন্য আজকেই দলগুলোর কাছে চিঠি পাঠানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।
সময় পাওয়া সাতটি দল হলো- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট, ইসলামী ঐক্যজোট, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি, বিএনএফ, গণতন্ত্রী পার্টি ও বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি)।
এর আগে রাজনৈতিক দলগুলোর ২০১৭ সালের আর্থিক লেনদেনের নিরীক্ষিত প্রতিবেদন ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে জমা দিতে নিবন্ধিত ৩৯টি দলকে চিঠি দেয় নির্বাচন কমিশন। সর্বশেষ নিবন্ধন বাতিলের তালিকায় থাকা ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলনের কাছে হিসাব চাওয়া হয়নি। আদালতের আদেশে জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিল রয়েছে। সংশোধিত গঠনতন্ত্র জমা দিতে ব্যর্থ হয়ে বাতিল হয় ফ্রিডম পার্টির নিবন্ধনও।
২০০৮ সালে নিবন্ধন প্রথা চালুর পর গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ মেনে প্রতিবছর আর্থিক লেনদেনের হিসাব দেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর। পরপর তিন বছর কমিশনে এ প্রতিবেদন দিতে ব্যর্থ হলে নিবন্ধন বাতিলের এখতিয়ার রয়েছে ইসির।
প্রসঙ্গত, ইতোমধ্যে রাজপথের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি তাদের আয়-ব্যয়ের হিসাব ইসিতে জমা দিয়েছে।