ওসমানী বিমানবন্দরে ৪ কোটি টাকা মূল্যের স্বর্ণের বারসহ পাচারকারী আটক

স্টাফ রিপোর্টার :
সিলেট ওসমানী বিমানবন্দর থেকে ৬০ পিস স্বর্ণের বারসহ এক পাচারকারীকে আটক করেছে শুল্ক গোয়েন্দা। শুক্রবার সকাল ১০টা ৫ মিনিটে ওমানের মাসকট থেকে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট নং-বিজি-২২২ থেকে ইকবাল হোসেন (২৬) নামের ওই পাচারকারীকে আটক করা হয়। উদ্ধার করা ৬০ পিস স্বর্ণের বারের ওজন ৬ কেজি ৯০০ গ্রাম। যার বাজারমূল্য প্রায় ৪ কোটি টাকা। আটককৃত ইকবাল হোসেন চট্টগ্রামের সাজকানি থানার মধ্যম কাঞ্চন এলাকার শেখ আহমদের পুত্র।
ওসমানী বিমানবন্দরের নিরাপত্তা কর্মকর্তা জানান, ওমানের রাজধানী মাসকট থেকে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট নং-বিজি-২২২ সিলেট হয়ে ঢাকা যাওয়ার কথা ছিল। ফ্লাইটটি সিলেটে আসে শুক্রবার সকাল ১০টা ৫ মিনিটে। ওই ফ্লাইটের যাত্রী ইকবাল হোসেনের পাশের সিট-৩৭ জে এর নিচে স্বর্ণের বারগুলো রাখা ছিল। যাত্রীরা বিমান থেকে নামার পর ওই সিটের নিচ থেকে স্বর্ণের বার রাখা ব্যাগ নিয়ে বের হওয়ার সময় শুল্ক গোয়েন্দা ব্যাগটিতে তল্লাশি চালিয়ে তাকে আটক করে। তবে জিজ্ঞাসাবাদে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ইকবাল হোসেন স্বর্ণের বারগুলো তার বলে অস্বীকার করছিলেন।
সূত্র জানায়, ইকবাল বিমানে তার সিট নং ৩১ এইচ’এ নিচে স্বর্ণের বারের ব্যাগ না রেখে পাশের সিট ৩৭ জে এর নীচে স্বর্ণের বারগুলো লুকিয়ে রাখে। যাতে ধরা পড়লে তার জড়িত থাকার বিষয়টি প্রকাশ না পায়। বিমানের সব যাত্রী নেমে পড়লেও ওই সময় নামেননি ইকবাল। পরে তার পাশের সিটের নিচে রাখা স্বর্ণের বারের ব্যাগ নিতে গেলে তাকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে এয়ারপোর্ট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ।
সিলেট-৭ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ানের (এপিবিএন) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়নাল আবেদিন বলেন, গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টা ৫ মিনিটে ওমানের মাসকট থেকে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট নং-বিজি-২২২ সিলেট ওসমানী বিমানবন্দরে আসেন। তিনি যে সিটে বসে এসেছেন তার পাশের সিট-৩৭ জে এর নিচে স্বর্ণের বারগুলো লুকিয়ে রাখেন। যাত্রীরা বিমান থেকে নামার পর তিনি ওই সিটের নিচ থেকে স্বর্ণের বার রাখা ব্যাগ নিয়ে বের হতে গেলে সন্দেহ হলে ব্যাগটিতে তল্লাশি চালায় কাস্টমস গোয়েন্দা ও আর্মড পুলিশ। এরপর স্বর্ণের বারগুলো ধরা পড়ে।