বিদায় নিলেও অনন্য রেকর্ড কলকাতার

ক্রীড়াঙ্গন রিপোর্ট :
ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) একাদশ আসরের বাকী আর একটি ম্যাচ। ২৭ মে’র ফাইনালে হবে শিরোপা নির্ধারণ। শুক্রবারের দ্বিতীয় কোয়ালিফাই ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ১৪ রানে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। তবে হেরে যাওয়া এই ম্যাচেও শাহরুখ খানের কেকেআর করে ফেলেছে আইপিএলের ইতিহাসের এক অনন্য রেকর্ড।
শুক্রবার সাকিব আল হাসানদের বিপক্ষে কলকাতার একাদশে ছিলেন মাত্র ৩ জন বিদেশি খেলোয়াড়। তারা হলেন সুনিল নারিন, ক্রিস লিন এবং আন্দ্রে রাসেল। আইপিএলের ১১ বছরের ইতিহাসে এর আগে কোন দলই প্লে অফ বা নকআউট পর্বে ৪ জনের কম বিদেশি ক্রিকেটার নিয়ে খেলেনি।
তবে প্রথমবারের মতো এই সাহস দেখিয়ে ফলাফল মোটেই ভালো হয়নি কেকেআরের। বরং উল্টোটাই হয়েছে। একজন বিদেশি বসিয়ে স্থানীয় পেসার খেলিয়েই ম্যাচ হেরেছে বলা যায়। ম্যাচে কলকাতার দুই স্থানীয় পেসার শিভাম মাভি ৪ ওভারে ৩৩ রান এবং প্রাসিদ কৃষ্ণা ৪ ওভার থেকে ৫৬ রান দিয়েছেন! আর এই রানের উপর ভর করেই হায়দ্রাবাদ পেয়ে যায় ১৭৪ রানের সংগ্রহ। যা তাড়া করতে নেমে কুলিয়ে উঠতে পারেনি কলকাতা।
দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে আরও দুইটি রেকর্ড গড়েছে কলকাতা। ১৭৫ রান তাড়া করতে নেমে পাওয়ার প্লে’র ৬ ওভারেই তারা করেছিল ৬৭ রান। চলতি আইপিএলে অরেঞ্জ আর্মিদের বিপক্ষে আর কোনো দলই পাওয়ার প্লে’তে এতো বেশি রান করতে পারেনি।
এছাড়া সাকিবের বলে মাত্র ৮ রানে কলকাতার অধিনায়ক দিনেশ কার্তিক আউট হলেও করে ফেলেছেন একটি রেকর্ড।
চলতি আসরে ৪৯৮ রান করেছেন কার্তিক। আইপিএলের ইতিহাসে উইকেটরক্ষক অধিনায়ক হিসেবে এক আসরে এত বেশি রান করার রেকর্ড নেই অন্য কোন ক্রিকেটারের। এর আগে ২০০৯ সালের আসরে ডেকান চার্জার্সের উইকেটরক্ষক অধিনায়ক অ্যাডাম গিলক্রিস্ট করেছিলেন ৪৯৫ রান।