গোয়াইনঘাটে চলছে সরকারী গোপাট খননের হিড়িক

গোয়াইনঘাট থেকে সংবাদদাতা :
গোয়াইনঘাট উপজেলায় সরকারী গোপাট খননের হিড়িক চলছে। উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের অধিকাংশ মৌজায় অবস্থিত সরকারী গোপাট খননে চলছে তান্ডবলীলা। গোপাট খনন করে মাছ চাষাবাদের উপযোগী করে তোলা হচ্ছে সরকারী ওই ভূমিতে। এই ইস্যু নিয়ে চলছে উপজেলার সচেতন মহলের মধ্যে নানা আলোচনা সমালোচনা। ইতি মধ্যে উপজেলা প্রশাসানের হস্তক্ষেপে নন্দিরগাঁও, রুস্তুমপুর ও ডৌবাড়ি ইউনিয়নের বেশ কয়টি মৌজায় সরকারী গোপাট খনন বন্ধ হয়েছে। সরকারী গোপাট রক্ষায় উপজেলা প্রশাসন জিরোটলারেন্সে অবস্থান করলে ও সরকারী গোপাট খনন থেকে থেমে নেই উপজেলার আলীরগাঁও ইউনিয়নের খাগড়া গ্রামের একটি মহল। বন্যার সময় পানি বন্দী করে মাছ চাষ করতে ওই গ্রামে চলছে গোপাট খনন করে খাল নিমার্ণের মহোৎসব। বৃহস্পতিবার সকালে সরজমিন পরির্দশন করে স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছ থেকে জানা যায় খাগড়া গ্রামের হাজী জালাল উদ্দিন, ইলিয়াছ, সিরাজ উদ্দিন (সিরাই), কুটি মিয়া, ফয়জুর রহমান ও হাজী সোনাফরসহ ১০/১৫ জনের একটি চক্র গত এক সপ্তাহ থেকে খাগড়া গ্রামের দক্ষিণ প্রান্তে সরকারী গোপাট খনন করে আসছেন। বিষয়টি সম্পর্কে স্থানীয়রা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমন চন্দ্র দাশকে অবগত করেন। সহকারী কমিশনার ভূমি সুমন চন্দ্র দাশ উক্ত গোপাট হতে সাময়িক ভাবে মাটি খনন বন্ধ করেন। প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারীদের না জানিয়ে গোয়াইঘাট উপজেলার বিভিন্ন মৌজায় সরকারী গোপাট খনন করে খাল তৈরি করা যেন প্রতা হিসাবে চালু হয়েছে। স্থানীরা সরকারী সম্পত্তি রক্ষায় নীতিমালা বাস্তবায়নের জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানিয়েছেন। এ ব্যপারে স্থানীয় খাগড়া গ্রামের ফয়জুর রহমান উক্ত গোপাট খননের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন আমরা কয়েকটি বাড়ির মানুষের চলাচলের জন্য রাস্তা নির্মাণ করছি। উক্ত গোপাটটির শেষ সীমানা আম্বরখানা-তামাবিল মহাসড়কের পৌচ্ছানি কিভাবে আপনারা মহাসড়কের সাথে সংযোগ করবেন এমন প্রশ্ন করলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।
গোয়াইনঘাটের সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুমন চন্দ্র দাশ বলেন গোয়াইনঘাট উপজেলার বেশ কয়টি ইউনিয়নে সরকারী গোপাট খননের অভিযোগ পেয়েছি। ইতিমধ্যে নন্দিরগাঁও, রুস্তুমপুর ও ডৌবাড়ি ইউনিয়নের বেশ কয়টি মৌজায় অবৈধভাবে সরকারী গোপাট খনন বন্ধ করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। খাগড়া গ্রামে সরকারী গোপাট খননের অভিযোগ পেয়ে খনন কাজ বন্ধ করেছি। সরজমিন পরিদর্শন পূর্বক দোষীদের বিরোধ্যে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।