১৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে জগন্নাথপুরে রাণীগঞ্জ সেতু নির্মাণ কাজের তথ্য দিতে টালবাহানা

জগন্নাথপুর থেকে সংবাদদাতা :
জগন্নাথপুরে প্রায় ১৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে সিলেট বিভাগের সবচেয়ে বড় স্বপ্নের রাণীগঞ্জ সেতু নির্মাণ কাজ চলছে। তবে তথ্য দিতে টালবাহানা করেন সংশ্লিষ্ট কর্তারা।
জানা গেছে, বিগত কয়েক মাস ধরে জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের রাণীগঞ্জ বাজার ফেরিঘাট এলাকায় প্রায় ১৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে কুশিয়ারা নদীর উপর জগন্নাথপুর সহ সুনামগঞ্জ বাসীর স্বপ্নের রাণীগঞ্জ সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। রাণীগঞ্জ সেতু প্রকল্পের কাজ পায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এমএম বিল্ডার্স। কাজ শুরুর পর থেকে নি¤œমানের ও মাটিযুক্ত কাচামাল দিয়ে কাজ করার অভিযোগ উঠলেও সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে আসেনি। যে কারণে কাজের দায়িত্বে থাকা কর্তারা আরো বেপরোয়া হয়ে তাদের মনগড়া ভাবে কাজ করছেন বলে স্থানীয়দের মধ্যে অনেকে জানান।
এদিকে-রবিবার বেলা আড়াইটার দিকে সরজমিনে রাণীগঞ্জ সেতু নির্মাণ কাজের অগ্রগতি নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ পরিবেশনের স্বার্থে বিভিন্ন তথ্য জানতে ঘটনাস্থলে সাংবাদিকরা যান। এ সময় রাণীগঞ্জ সেতু নির্মাণের পশ্চিমপার সাইড অফিসে গেলে অফিসে থাকা কর্মচারী সাদ্দাম হোসেন বলেন, স্যাররা পূর্বপার সাইড অফিসে আছেন। আপনারা সেখানে গেলে উনাদের সাথে কথা বলতে পারবেন। কিছুক্ষণ পর পূর্বপার সাইড অফিসে গেলে অফিসে থাকা আরেক কর্মচারী হাসান বলেন, স্যাররা পশ্চিমপার অফিসে আছেন। সাংবাদিকরা যাওয়ার খবর পেয়ে কর্তারা সটকে পড়েন। তারা তথ্য দিতে টালবাহানা করেন। অনেক চেষ্টা করেও দেখা মেলেনি সংশ্লিষ্ট কর্তা ব্যক্তিদের। জানা যায়নি সেতুর অগ্রগতি সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য। তাদের এমন আচরণে রহস্যের সৃষ্টি হয় এবং উপস্থিত স্থানীয়দের মধ্যে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়।
অবশেষে এ ব্যাপারে ফোনে যোগাযোগ করা করা হলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এমএম বিল্ডার্সের রাণীগঞ্জ সেতু প্রকল্পের দায়িত্বে থাকা ম্যানেজার জামাল আহমদ বলেন, আমি এখানে নেই, অনেক দুরে আছি।