Tag:

সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৭৪৮ কোটি ৬৪ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার বাজেট ঘোষণা

স্টাফ রিপোর্টার :
সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) ৭৪৮ কোটি ৬৪ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার নগরীর দরগা গেটের একটি অভিজাত হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে সিসিকের ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের এই বাজেট ঘোষণা করা হয়। ঘোষিত বাজেটে আয়ের সমপরিমাণ ব্যয়ও ধরা হয়েছে।
বাজেট ঘোষণা করেন সিসিকের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। বাজেট বক্তৃতায় তিনি বলেন, পরিকল্পিত নগরায়ন ও নাগরিকদের অধিকতর সুবিধা ও সেবা প্রদান নিশ্চিতকরণে এবার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে।
বাজেটের উল্লেখযোগ্য আয়ের খাতগুলো হলো- হোল্ডিং ট্যাক্স ১৭ কোটি ৬৫ লাখ ৪৪ হাজার টাকা, স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তরের উপর কর ৮ কোটি টাকা, ইমারত নির্মাণ ও পুননির্মাণের উপর কর ২ কোটি টাকা, পেশা ব্যবসার উপর কর ৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা, বিজ্ঞাপনের উপর কর ১ কোটি টাকা, পানির সংযোগ লাইনের মাসিক চার্জ বাবদ ৩ কোটি ৫০ লাখ টাকা, পানির লাইনের সংযোগ ও পুনঃসংযোগের ফি এক কোটি টাকা, নলকূপ স্থাপন অনুমোদন ও নবায়ন ফি ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা প্রভৃতি।
এ ছাড়া বাজেটে উল্লেখযোগ্য ব্যয়ের খাতের মধ্যে রাজস্ব খাতে ৬১ কোটি ৪২ লাখ ৫৫ হাজার টাকা, রাজস্ব খাতে অবকাঠামো উন্নয়ন বাবদ ৫৩ কোটি ২০ লক্ষ টাকা, সরকারী উন্নয়ন কর্মসূচী (এডিপি) খাতে ২০ কোটি টাকা, সরকারী মঞ্জুরী খাতে ৪০ কোটি টাকা, অবকাঠামো নির্মান শীর্ষক প্রকল্পে ১০০ কোটি টাকা নগরীর ১১ টি ছড়া সংরক্ষণ ও আরসিসি রিটেইনিং ওয়াল নির্মাণ শীর্ষক প্রকল্পে ১১৬ কোটি টাকা, দক্ষিণ সুরমা বাস টার্মিনাল আধুনিকায়ন প্রকল্পে ৫০ কোটি টাকা, দক্ষিণ সুরমা সাইফুর রহমান পার্কে রাইড স্থাপন প্রকল্পে ১৫ কোটি টাকা, সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন উন্নয়ন ও অন্যন্য কাজে জমি অধিগ্রহণ বাবাদ ৭০ কোটি টাকা, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্যানিটারি ল্যান্ড ফিল্ড নির্মাণ প্রকল্প বাবদ ৫০ কোটি টাকা, আরবান প্রাইমারি এনভায়রন সেন্টার হেলথ সেক্টর ডেভোলাপমেন্ট খাতে ৫০ কোটি টাকা প্রভৃতি।
মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী তার বক্তৃতায় আরো বলেন, নগরীর দক্ষিণ সুরমার কদমতলী কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল আধুনিকায়নের উদ্যোগ নিয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশন। এতে ব্যয় হবে প্রায় ৬০ কোটি টাকা। তিনি জানান, কদমতলী বাস টার্মিনালকে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ণে সম্পূর্ণ নতুন আঙ্গিকে সংস্কার করা হবে। প্রায় ৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে এই প্রকল্পের ডিজাইন করছেন বাংলাদেশের খ্যাতনামা প্রকৌশলীরা। এখানে যাত্রীদের জন্য রেস্ট হাউস থাকবে। এছাড়া যাত্রীদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদানের জন্য চিকিৎসক ও এম্বুলেন্স থাকবে। এছাড়া প্রত্যেক রুট অনুযায়ী থাকবে আলাদা আলাদা বাস পার্কিং জোন, বাস প্রবেশ ও বাহিরের জন্য আলাদা আলাদা ব্যবস্থা। বাজেট বক্তৃতায় মেয়র বলেন, নগরীর পারাইচকে ট্রাক টার্মিনালের নির্মাণ কাজও দ্রুত এগিয়ে চলছে। ২০১৯ সালের জুন মাসের মধ্যে এ কাজ শেষ হবে।
বাজেট ঘোষণার সময় সাংবাদিক, সিটি কপোরেশনের কর্মকর্তাবৃন্দ ও বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষজন উপস্থিত ছিলেন। পরে সিলেট সিটি কপোরেশন এক ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে।