নবীগঞ্জে বছরের বারো মাস জলাবদ্ধতা অতিক্রম করে চলছে পাঠদান

0
8

হবিগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা :
বছরের বারো মাস জলাবদ্ধতা অতিক্রম করে চলছে হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ পৌর এলাকার নহরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম। বর্ষা মৌসুমে রাস্তায় কোমর পানি হলে বিদ্যালয়ে আসতে নানা ধরণের দুর্ভোগ পোহাতে হয় শিক্ষার্থীদের।
স্কুল প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ সমস্যা চলে আসলেও এর স্থায়ী কোনো সামাধান হচ্ছে না। এতে করে অল্প বৃষ্টিতেই পানিবন্দি হয়ে পড়েন কয়েক শতাধিক কোমলমতি শিক্ষার্থী। বর্ষা মৌসুমে পানি বৃদ্ধি পেলে নৌকা দিয়ে শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসা যাওয়া করতে হয়।
সোমবার দুপুরে সরেজমিনে ঘুরে স্থানীয় লোকজনের সাথে আলাপকালে জানা যায়, নবীগঞ্জ পৌর এলাকার নহরপুর গ্রামের নহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যাতায়াতের একমাত্র রাস্তা অল্প বৃষ্টি হলেই পানি জমে পুকুরে পরিণত হয় এতে করে পানিবন্দী হয়ে পড়েন নহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শত শত শিক্ষার্থীসহ নহরপুর গ্রামের প্রায় ২৫/৩০টি পরিবার। এতে করে রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াতকারী কয়েক শতাধিক মানুষ ও স্কুলে পড়–য়া শিক্ষার্থীদের মারাত্মকভাবে দুর্ভোগ পোহাতে হয়।
স্থানীয়রা আরো জানান, অল্প বৃষ্টিতেই উক্ত রাস্তাটির মধ্যে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে এত করে নহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া বন্ধ হয়ে যায়। অন্যদিকে রাস্তার জায়গা একাধিক ব্যক্তি মালিকানাধীন হওয়ায় মূল্যবান জায়গা জনস্বার্থে ছাড়তে নারাজ মালিক পক্ষ। আকবর হোসেন নামে স্থানীয় এক ভুক্তভোগী জানান, রাস্তাটির মধ্যে জলাবদ্ধতার কারণে উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা যেতে চায় না। দীর্ঘদিন ধরে নহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নহরপুর গ্রামের প্রায় ২৫/৩০টি পরিবার বসবাস করে আসছে। একমাত্র চলাচলের রাস্তায় জলাবদ্ধতার কারণে শিক্ষার্থীর পাশাপাশি ২৫/৩০টি পরিবারের ৪ শতাধিক লোকজনকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। নহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীতে পড়–য়া শিক্ষার্থী এনামুল আহমেদ এ প্রতিবেদককে জানায়, বৃষ্টি হলে বিদ্যালয়ে আসতে আমাদের সমস্যায় অয় রাস্তায় অনেক পানি থাকে তাই স্কুলে আইতে ভালো লাগে না। বর্ষা মৌসমের পাশাপাশি অল্পবৃষ্টি হলেই বিদ্যালয়ে প্রবেশ করা কঠিন হয়ে পড়ে। দীর্ঘদিন ধরে অল্প বৃষ্টিতেই রাস্তায় জলাবদ্ধতার কারণে বিদ্যালয়ে পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে। রাস্তায় একাধিক মালিকানা সমস্যা হলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ চোখে পড়েনি বলে জানান ভুক্তভোগী এলাকাবাসী।
এ ব্যাপারে নহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শীপ্রা নাথ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে জলাবদ্ধতার সমস্যা চলে আসছে, বছরের বারো মাস আমাদের শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা পানি ভেঙ্গে স্কুলে আসতে হয়, এ ব্যাপারে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সুদৃষ্টি কামনা করি।
নহরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুস সামাদ (চুনু মিয়া) জানান, শিক্ষার্থীদের সমস্যা দীর্ঘদিনের, যাতায়াতের রাস্তা ব্যক্তি মালিকানাধীন থাকায় শত চেষ্টা করেও সবাইকে একমতে আনা সম্ভব হয়নি, মালিক পক্ষের কেউ জায়গা দামী বলে ছাড় দিতে নারাজ, আবার টাকা দিয়ে বিক্রি করেতেও অনাস্থা পোষণ করেন। এ ব্যাপারে জনস্বার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।