গোলাপগঞ্জ উপজেলায় জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে দিনব্যাপী কর্মশালা

0
3

“শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনতামূলক যোগাযোগ কার্যক্রম (৫ম পর্যায়)” শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় সিলেট জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে গোলাপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে দিনব্যাপী ওরিয়েন্টেশন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে যৌতুক ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ, নারীর ক্ষমতায়ন, নারীর সামাজিক নিরাপত্তা, পরিবেশ সুরক্ষা এবং দুর্যোগকালীন নারী ও শিশুর সচেতনতা বিষয়ে বক্তব্য উপস্থাপন করেন সিলেট জেলা তথ্য অফিসের উপপরিচালক জুলিয়া যেসমিন মিলি। কর্মশালায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যসহ অটিজম ও শিশুর মানসিক স্বাস্থ্য, মা ও শিশুর স্বাস্থ্য পরিচর্যা, নিরাপদ মাতৃত্ব এবং শিশুর পানিতে ডোবা প্রতিরোধ বিষয়ে বক্তব্য উপস্থাপন করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ তউহিদ আহমদ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন-উপজেলা আওতায়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মোঃ রফিক আহমদ। সভাপতির বক্তব্যসহ স্যানিটেশন পরিবেশ ও জন্মনিবন্ধন, মাদক এবং জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ বিষয়ে বক্তব্য রাখেন-উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম। বক্তারা শিশু ও নারীর উন্নয়ন বিষয়ে ব্যাপক আলোকপাত করেন। মূল বক্তব্যের আলোকে কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীগন মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন এবং নিজ নিজ মতামত ব্যক্ত করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপপরিচালক জুলিয়া যেসমিন মিলি বলেন-শিশুরা আগামী দিনের ভবিষ্যৎ, তাই ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যাতে সুন্দর সুস্থভাবে বেড়ে উঠতে পারে সেজন্য সরকার এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। দেশের সকল নারী ও শিশু যাতে নিজ নিজ অধিকার যথাযথভাবে ভোগ করতে পারে সে বিষয়ে জনসাধারণকে সচেতন করার লক্ষ্যেই এই আয়োজন। তিনি আরও বলেন-একটি সুস্থ মা-ই একটি সুস্থ সন্তান জন্ম দিতে পারে। তাই সর্বাগ্রে মায়ের স্বাস্থ্যের প্রতি সকলকে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখতে হবে। কেবলমাত্র গর্ভকালীন সময়েই মায়ের স্বাস্থ্যের প্রতি যতœ নিলে চলবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন-শিশুর জন্মের পর মা ও শিশুর প্রতি বিশেষ নজর রাখা দরকার যাতে তারা উভয়ই পুষ্টি পেতে পারে। আর পুষ্টি সমৃদ্ধ শিশুরাই আগামী দিনে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশের কাজে আত্মনিযোগ করতে পারে বলে তিনি তাঁর বক্তব্যে উল্লেখ করেন। বিজ্ঞপ্তি