কানাইঘাটে বালু উত্তোলনের ২টি ড্রেজারে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের, গ্রেফতার ১

0
19

কানাইঘাট থেকে সংবাদদাতা :
কানাইঘাটে সুরমা নদীর গাছবাড়ী নিজ দলইকান্দি বালু মহাল থেকে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলণ কে কেন্দ্র করে গত রবিবার ২টি বালু উত্তোলণের ড্রেজারে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় কানাইঘাট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। রবিবার রাতে স্থানীয় ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা নুরুল আমিন বাদী হয়ে থানায় বানীগ্রাম ইউপির ৩নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য আফতাব উদ্দিন সহ ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত নামা ১০০/১২০ জন কে আসামী করে অগ্নি সংযোগ সহ বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ক্ষয়ক্ষতির অপরাধে বিভিন্ন ধারায় উক্ত মামলা দায়ের করেন। থানার মামলা নং-২৭, তারিখ-২৯/০৭/২০১৮ইং। এ ঘটনায় থানা পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অপরাধে স্থানীয় সর্দারীপাড়া গ্রামের রহিম উদ্দিন নামে এক ব্যক্তিকে গতকাল সোমবার গ্রেফতার করেছে। মামলায় বালু উত্তোলন নিয়ে সৃষ্ট ঘটনায় এলাকার কতিপয় উশৃংখল লোকজন কর্তৃক ২টি ড্রেজারে অগ্নি সংযোগের ফলে একটি ড্রেজারে থাকা রান্না করার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে স্থানীয় নিজ দলইকান্দি নয়াগ্রামের দরিদ্র মৎস্যজীবি রঞ্জন দাসের পুত্র সুকান্ত দাস শিশু (১৮) একই গ্রামের পরিন্দ্র দাসের পুত্র অজয় দাস (১২) গুরুতর আহত এবং কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি সহ নানা অভিযোগ আনা হয়েছে আসামীদের বিরুদ্ধে। এদিকে মারাত্মক নদী ভাঙ্গন কবলিত সুরমা নদীর নিজ দলইকান্দি এলাকা থেকে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন নিয়ে ২টি ড্রেজারে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হওয়ায় এলাকায় জনমনে গ্রেফতার আতঙ্ক বিরাজ করছে। স্থানীয় সচেতন মহল এ নিয়ে যাতে করে কোন নিরপরাধ লোকজন হয়রানীর শিকার না হন এজন্য স্থানীয় প্রশাসন ও আইন শৃংখলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
জানা যায়, নিজ দলইকান্দি বালু মহালের বৈধ ইজারাধার হিসাবে দাবী করে আসছেন সিলেটের আলোচিত বালু ব্যবসায়ী আফতাব মিয়া এবং কানাইঘাট তালবাড়ী গ্রামের জাবের আশরাফ চৌধুরী। গত রবিবার জাবের আশরাফ চৌধুরীর লোকজন মারাত্মক নদী ভাঙ্গন কবলিত দলইকান্দি এলাকা থেকে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের সময় স্থানীয় ইউপি সদস্য আফতাব উদ্দিন ও নদীর তীরবর্তী এলাকার লোকজন বাধা প্রদান করেন। এক পর্যায়ে কিছু উশৃংখল লোকজন বালু উত্তোলনের ২টি ড্রেজারে অগ্নি সংযোগ করলে একটি ড্রেজারে গ্যাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়ে কয়েকজন আহত হন এবং বিস্ফোরণের সময় পুরো এলাকা প্রকম্পিত হয়ে উঠে। সন্ধ্যার দিকে সিলেট থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম ঘটনাস্থলে এসে একটি ড্রেজারের আগুন নিয়ন্ত্রনে আনলেও অপর ড্রেজার টি পুড়ে গিয়ে নদীগর্ভে তলিয়ে যায়।