আশুকের মুক্তি না দিলে কঠোর আন্দোলন – ফলিক

0
14

মাদক দিয়ে প্রাইভেট কার চালক আশুক আহমদকে ফাঁসানোর প্রতিবাদে গতকাল শনিবার সভা করেছে সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। দক্ষিণ সুরমার বাবনা পয়েন্টের কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ সভায় সভাপতির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা সেলিম আহমদ ফলিক বলেন, আশুক আহমদ একজন নিরীহ প্রাইভেট কার চালক। তাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মাদক দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে। তিনি বলেন, গত ২৮ জুলাই বিয়ানীবাজারের নিমতলাস্থ অতিথি রেস্ট হাউসের নিচে থেকে দুজন নারী ও একটি ছোট শিশুকে নিয়ে আশুক সিলেটের উদ্যোশে যাত্রা করেন। ওই নারী চন্দনপুর ব্রিজে আসার পরপরই তার ফোনে কল আসে। নারী মোবাইলফোনে বলেন, আমি বর্তমানে চন্দনপুর ব্রিজে আছি। পরে গোলাপগঞ্জস্থ এমসি একাডেমির সামনে গাড়ি নিয়ে আসার পর আশুকের গাড়ির গতিরোধ করেন সিভিল ড্রেস পরিহিত কয়েকজন পুলিশ। আশুক গাড়ি (নম্বর-ঢাকা চট্ট-গ-২৬-৩৪৮৩) থামায়। এ সময় ওই পুলিশ সদস্যরা আশুককে গাড়ি থেকে নামিয়ে হাতকড়া লাগিয়ে দেন, পরে সিলেট মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। কিন্তু রহস্যজনক কারণে দু নারীকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ফলিক আহমদ সেলিম বলেন, গাড়িতে ওঠা যাত্রীবাহি ওই দুই নারীই গাড়িতে মাদক রাখেন। পরবর্তীতে আশুক আহমদকে ওই মাদক দিয়ে চালান দেওয়া হয়। তিনি বলেন, এটি নতুন নয়; সবসময় চালকদের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র চলছে। আশুক আহমদকে ষড়যন্ত্র করে গ্রেফতার করা হয়েছে। যদি তার উপর থেকে এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং অভিলম্বে মুক্তি দেওয়া না হয় তাহলে সিলেটের সব শ্রেনির পরিবহন শ্রমিকদের নিয়ে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে।
সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া আহমদের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রকিব উদ্দিন রফিক, কার্যকরী সভাপতি, দিলু মিয়া, সহসভাপতি রুনু মিয়া মইন, মতসির আলী, আব্দুল গফুর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম, শাহ জামাল আহমদ, সহসাংগঠনিক, মো. রুনু মিয়া, মো. আজাদ মিয়া, নিখিল চন্দ্র দাস, মোঃ আবুল হাসনাত, দপ্তর সম্পাদক শামসুল হক মানিক, সাজ উদ্দিন প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি