আবুল মাল আবদুল মুহিত কে-স্পোর্টস ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন আজ

0
6
আবুল মাল আবদুল মুহিত কে-স্পোর্টস আন্ত:উপজেলা ফুটবল টুর্নামেন্টে সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি মাহি উদ্দিন আহমদ সেলিম।
আবুল মাল আবদুল মুহিত কে-স্পোর্টস আন্ত:উপজেলা ফুটবল টুর্নামেন্টে সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি মাহি উদ্দিন আহমদ সেলিম।

স্টাফ রিপোর্টার :
সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থা, সিলেট জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের যৌথ আয়োজনে ‘কে-স্পোর্টস’র পৃষ্ঠপোষকতায় সিলেটের ১৩টি উপজেলাকে নিয়ে আবারো শুরু হচ্ছে ‘আবুল মাল আবদুল মুহিত কে-স্পোর্টস আন্তঃউপজেলা ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০১৮।
শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৫টায় সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি। ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হবে ২৮ অক্টোবর। ওইদিন বিকাল ৪টায় উদ্বোধনী দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে বালাগঞ্জ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা ও গোলাপগঞ্জ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা। ২য় ম্যাচে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মুখোমুখি হবে সিলেট সদর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা ও বিয়ানীবাজার উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা। টুর্নামেন্টে গ্যালারীতে প্রবেশ উন্মুক্ত থাকবে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার কনফারেন্স হলে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি মাহি উদ্দিন আহমদ সেলিম।
তিনি জানান, ‘আবুল মাল আবদুল মুহিত ‘কে-স্পোর্টস’ আন্তঃউপজেলা ফুটবল টুর্নামেন্ট সিলেট অঞ্চলের ফুটবল খেলোয়াড়দের মধ্যে নবজাগরণের সৃষ্টি হবে। পাশাপাশি স্থানীয় ফুটবল খেলোয়াড়দের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমি দৃঢ় আশাবাদী। আমরা চাই, যুব সমাজ জঙ্গিবাদ, মাদক ও সন্ত্রাসবাদ হতে দূরে থাকুক এবং পড়াশুনার পাশাপাশি খেলাধূলায় মনোনিবেশ করে শারীরিক ও মানসিকভাবে পরিশীলিত হয়ে একজন সত্যিকারের মানুষ হিসাবে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হোক।
তিনি আরো জানান, সিলেটের ফুটবল খেলোয়াড়েরা স্থানীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে তাদের ক্রীড়াপ্রতিভার মাধ্যমে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সিলেট তথা বাংলাদেশের গৌরবোজ্জল ইতিহাসকে আরো গৌরবান্বিত করুক।
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, এমপি মহোদয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ও দিকনির্দেশনায় এবং আপনাদের সকলের আন্তরিক সহযোগিতায় সিলেটের ক্রীড়াঙ্গনকে উজ্জীবিত করার ও সিলেটের ক্রীড়ামোদী দর্শকবৃন্দের চাহিদার বিষয়টি বিবেচনায় এনে প্রচুর দর্শক সমাগমের মধ্য দিয়ে সিলেটে এ পর্যন্ত চারটি আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্ণামেন্ট নেপাল বনাম বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের মধ্যকার আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ-২০১৪, বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্ণামেন্ট-২০১৫ ও সাফ অনুর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশীপ-২০১৬ এবং বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় ও সিলেট জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের পরিচালনায় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল)-২০১৬ এবং সদ্য সমাপ্ত বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০১৮ দ্বিতীয়বারের মতো সুসম্পন্ন হয়েছে।
বর্তমান সরকার ক্রীড়াঙ্গনের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রাখছেন এবং ক্রীড়াঙ্গনকে আরো গতিশীল করার লক্ষ্যে যুগোপযোগী পরিকল্পনা গ্রহণ করছেন। আমরাও চাই বর্তমান সরকারের এই উদ্যোগকে সফলতার দোরগোড়ায় পৌঁছানোর লক্ষ্যে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে। অর্থমন্ত্রী স্থানীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ইভেন্টে ক্রীড়া কার্যক্রম আয়োজনের ব্যাপারে আমাদেরকে সদা নির্দেশনা প্রদান করে আসছেন। সিলেটের ক্রীড়াঙ্গনের উন্নয়নে বিশেষ অবদানের জন্য অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, এমপি মহোদয়ের প্রতি সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থা, সিলেট জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন ও তথা সমগ্র সিলেটবাসীর পক্ষ হতে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।
তিনি অবগতির জন্য জানান, সিলেট জেলা স্টেডিয়ামের ভি.আই.পি. আসন সংকট নিরসনের লক্ষ্যে বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির আবেদনের প্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, এমপির ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় নয় কোটি পচাত্তর লক্ষ টাকা ব্যয়ে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে ভি.আই.পি. ভবন এবং সিলেট জেলা স্টেডিয়াম ও আবুল মাল আবদুল মুহিত ক্রীড়া কমপ্লেক্স এর অধিকতর উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্পের কাজ ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে।
বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্ট ২০১৮ সফলতার সাথে শেষ করায় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট থেকে বিশেষ ধন্যবাদস্বরূপ সম্মাননা স্মারক গ্রহণ করার বিষয়টিও তিনি তুলেন ধরেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যনির্বাহী সদস্য বিজিত চৌধুরী, নাজনীন আক্তার, জেলা ক্রীড়া সংস্থার কোষাধ্যক্ষ সিরাজ উদ্দিন, বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মারিয়াম চৌধুরী মাম্মী, সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সহ-সভাপতি এম. এ. সাত্তার, সিলেট জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের কার্যনির্বাহী সদস্য মাহমুদ হোসেন শাহীন, ওসমানীনগর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শামসুল ইসলাম মিলন, সিলেট সদর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সদস্য সাংবাদিক মো. ওলিউর রহমান, মোহনবাগান স্পোর্টিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন হেলাল, জনতা ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এহতেশামুল হাছান লয়েছ।