হবিগঞ্জের বাহুবলে মতবিনিময় সভায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ॥ কল কারখানায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গ্যাস দেয়া হবে ॥ যারা হরতাল করছে ৭২-৭৩’ সাল হলে তাদের গুলি করে মারতাম – সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

0
1

Habiganj Picture_07 Novemberহবিগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা :
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি বলেছেন, গ্যাস অত্যন্ত মূল্যবান সম্পদ। গৃহস্থালীর কাজে এ সম্পদের ব্যবহার সীমিত করা হচ্ছে। তবে কল কারখানায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গ্যাস সংযোগ দেয়া হবে। মন্ত্রী বলেন সাম্প্রতিক সময়ে ঢাকায় কোন নতুন সংযোগ দেয়া হয় নাই। গৃহস্থালীর কাজে ব্যবহারের জন্য আমরা অন্য ব্যবস্থা করব। তিনি আরো বলেন, যেহেতু বিবিয়ানা গ্যাস ক্ষেত্র থেকে বিপুল পরিমাণ গ্যাস উৎপাদন হচ্ছে। হেতু বিবিয়ানা এলাকার আশপাশে কিছু সংযোগ দেয়া যেতে পারে। তিনি বলেন, আমরা স্কুল-কলেজ জাতীয়করণের নীতিমালা দিয়েছি। এ অনুযায়ী যেসব প্রতিষ্ঠান অগ্রগামী সেগুলো জাতীয়করণের ব্যবস্থা করা হবে।
গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টায় হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলা সভাকক্ষে জনপ্রতিনিধি ও সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন।
হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোঃ জয়নাল আবেদীন-এর পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী, হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি এডভোকেট আবু জাহির, হবিগঞ্জ-২ আসনের এমপি এডভোকেট আব্দুল মজিদ খান, হবিগঞ্জ-৪ আসনের এমপি এডভোকেট মাহবুব আলী, হবিগঞ্জ-১ আসেনর এমপি আব্দুল মুনিম চৌধুরী, সংরক্ষিত মহিলা এমপি আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী ও হবিগঞ্জের জেলা পরিষদ প্রশাসক ডা. মুশফিক হোসেন চৌধুরী। সভায় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন বাহুবল উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল হাই, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি কাকুল শাহরিয়ার চৌধুরী পিপলু, ইউপি চেয়ারম্যান নজমুল হোসেন চৌধুরী ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল আহম্মদ প্রমুখ।
মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী বলেন, কয়দিন ধরে হরতাল চলছে। মন্ত্রীকে (অর্থমন্ত্রী) বলব প্রতিটি ক্যান্টনম্যান্ট থেকে এক একেক ব্যাটালিয়ান সোলজার নামিয়ে ওদের সায়েস্তা করতে হবে। যারা ভায়োল্যান্স সৃষ্টি করে তাদেরকে দেখামাত্রই গুলি করতে হবে। আর সহ্য করা যায় না। কষ্টের একটা সীমা আছে। তিনি আরো বলেন, আজকে যুদ্ধাপরাধিদের ফাঁসি হচ্ছে। তার জন্য হরতাল। যদি ৭৩ কিংবা ৭২ সাল হত, ওদেরকে গুলি করে মারতাম। তিনি আরো বলেন, আগামী ৪ বছরের মধ্যে দারিদ্র্য বিমোচন কর্মসূচিকে সত্যিকার ভাবে বাস্তবায়িত করে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে হবে। বিশ্ববাসীকে দেখিয়ে দিতে হবে আমরাও পারি।
এছাড়াও সভায় স্থানীয় নেতৃবৃন্দ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ, পৌরসভা, আয়রণমুক্ত পানি সরবরাহ প্রকল্প চালু, বিবিয়ানা ও রশিদপুর গ্যাস ক্ষেত্রের গ্যাস ঘরে ঘরে বাহুবল-নবীগঞ্জের ঘরে ঘরে সরবরাহ, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন, উপজেলা হাসপাতালে ৫১ শয্যার কার্যক্রম চালু করণ প্রভৃতি দাবি-দাওয়া তোলে ধরেন।