সিএনজি অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র পত্রিকার বিবৃতিতে সীমাবদ্ধ ॥ নির্ধারিত নয় ইচ্ছেমাফিক ভাড়া আদায় করছে সিএনজি অটোরিক্সা চালকরা

0
7

স্টাফ রিপোর্টার :
১১ নভেম্বর থেকে নির্ধারিত ভাড়ায় সিএনজি অটোরিক্সা চলাচল করবে জেলা অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের এমন সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরও কোথাও নির্ধারিত ভাড়ায় অটোরিক্সা সিএনজি চলাচল করেনি।
গতকাল নগরীর কোর্ট পয়েন্ট, সুরমা মাকের্ট পয়েন্ট, বন্দরবাজার, জেল রোড, নাইওরপুল, সোবহানীঘাট, ওসমানী মেডিকেল, মদিনা মার্কেট, আম্বরখানা, কুমারগাঁও, দক্ষিণ সুরমার কদমতলী, বাবনা, হুমায়ুন রশীদ চত্বর ও চন্ডিপুল পয়েন্ট সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ড ঘুরে ও যাত্রীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বিভিন্ন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া সিএনজি অটোরিক্সা নির্ধারিত ভাড়ায় যাওয়া তো দূরের কথা উপরন্তু সিলেট বিভাগ জুড়ে ঘোষিত পরিবহন ধর্মঘটের কারণে সিএনজি চালকরা ভাড়া আদায় করেছে। এ নিয়ে একাধিক জায়গায় যাত্রীদের সাথে চালকদের বচসার ঘটনাও ঘটেছে। সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ডগুলোতে শ্রমিক নেতা পরিচয়ে যারা দায়িত্ব পালনে ছিলেন যাত্রীদের কাছ থেকে নির্ধারিত ভাড়া নেয়ার ক্ষেত্রে তারাও উৎসাহী ছিলেন না বা চালকদেরও এ ব্যাপারে কোন নির্দেশনা দেননি। শুধুমাত্র শ্রমিক ইউনিয়নের ব্যানারে পত্রিকায় একটি বিবৃতি দিয়ে তাদের দায়িত্ব পালন করেছেন। যাত্রীদের কেউ কেউ অভিযোগ করেছেন, সিলেট বিভাগ জুড়ে ভারী যানবাহনগুলোর ডাকা ধর্মঘটের বিরুদ্ধে টেক্কা দিতে গিয়ে অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়ন তড়িঘড়ি করে নির্ধারিত ভাড়ার বিষয়টি সামনে নিয়ে এসেছে। বাস্তবে কাজের কাজ কিছুই হয়নি।
এ ব্যাপারে সিলেট জেলা অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়ন (৭০৭) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আজাদ মিয়া  নির্ধারিত ভাড়া নেয়ার সিদ্ধান্তটির না মানার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এ নিয়ে আ’লীগ নেতা মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, বদর উদ্দিন আহমদ কামরান ও জেলা প্রশাসকসহ অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দ ১১ নভেম্বরের আগে বসে সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা ছিল কিন্তু বসাও হয়নি যে কারণে যে যার মতো ভাড়া আদায় করেছে।
উল্লেখ্য, গত ৯ নভেম্বর সিলেট জেলা অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজিঃ নং-৭০৭)-এর কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির জরুরী সভার প্রস্তাবে অনৈতিক ও অন্যায় দাবি আদায়ের লক্ষ্যে পরিবহন ধর্মঘটের নামে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি কোন সচেতন মানুষের কাম্য হতে পারে না। তাই অযৌক্তিক দাবির নামে অন্য কোন ট্রেড ইউনিয়ন বা সংগঠন আহূত পরিবহন ধর্মঘট আমাদের ইউনিয়নকে প্রভাবিত করতে পারে না। এ কারণে জনদুর্ভোগ লাঘব এবং সামাজিক দায়বোধের প্রতি সম্মান দেখিয়ে আগামী ১১ নভেম্বর থেকে নির্ধারিত ভাড়ায় অটোরিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নভূক্ত সদস্যদের গাড়ি প্রতিটি গন্তব্যে নিয়মিত চলাচল করবে।