সাধারণ ও মহিলা কাউন্সিলর পদে যারা বিজয়ী হয়েছেন

0
3

সিন্টু রঞ্জন চন্দ :
সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক) নির্বাচন গতকাল সোমবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। নগরীতে মোট ২৭টি ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদও ২৭টি। এগুলো লড়াইয়ে ২৭ জন সাধারণ কাউন্সিলরপ্রার্থী বিজয়ী হয়েছে। এসব ওয়ার্ডে ৯ জন মহিলা কাউন্সিলররাও বিজয়ী হয়েছেন।
বিজয়ীরা হচ্ছেন-
১ নম্বর ওয়ার্ড: সৈয়দ তৌফিকুল হাদী (ঝুড়ি মার্কা) ১৫৯৩ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী পেয়েছে নিয়াজ মোহাম্মদ আজিজুল করিম (করাত) পেয়েছে ৯৯২ ভোট।
২ নম্বর ওয়ার্ড: বিক্রম কর সম্রাট (লাটিম) ২০৮৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রাজিক মিয়া (ঘুড়ি) পেয়েছেন ১৪৯৩ ভোট।
৩ নম্বর ওয়ার্ড: আবুল কালাম আজাদ লায়েক (ঠেলা গাড়ি) ৩১৭৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এস এম আবজাদ হোসেন (ব্যাডমিন্টন ব্যাট) পেয়েছেন ১৪৬৯ ভোট।
৪ নম্বর ওয়ার্ড: রেজাউল হাসান কয়েস লোদী (লাটিম) ২৮২৮ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সোহাদ রব চৌধুরী (ঠেলাগাড়ি) পেয়েছেন ১১৪৪ ভোট।
৫ নম্বর ওয়ার্ড: রেজওয়ান আহমদ (টিফিন ক্যারিয়ার) ৩৯৮৬ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কামাল মিয়া (ঘুড়ি) পেয়েছেন ১৯৩৭ ভোট।
৬ নম্বর ওয়ার্ড: ফরহাদ চৌধুরী শামীম (ঘুড়ি) ৪০০৩ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইমদাদ হোসেন চৌধুরী (রেডিও) পেয়েছেন ৩৪৪৯ ভোট।
৭ নম্বর ওয়ার্ড: আফতাব হোসেন খান (ঘুড়ি) ৬২২৩ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাঈদ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ (লাটিম) পেয়েছেন ৩৮৫০ ভোট।
৮ নম্বর ওয়ার্ড: ইলিয়াছুর রহমান (ঝুড়ি) ৪০৯২ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জগদীশ চন্দ্র দাশ (ট্রাক্টর) পেয়েছেন ৩৩৫৩ ভোট।
৯ নম্বর ওয়ার্ড: মোখলেছুর রহমান (ঠেলাগাড়ি) ৪০৯২ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নজরুল ইসলাম (রেডিও) পেয়েছেন ৩৬২৪ ভোট।
১০ নম্বর ওয়ার্ড: তারেক উদ্দিন (ঠেলাগাড়ি) ২২৪৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুল হাকিম (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট) পেয়েছেন ২১৫৫ ভোট।
১১ নং ওয়ার্ড: রকিবুল ইসলাম ঝলক (ঠেলাগাড়ি) ৪১৮০ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুর রকিব বাবলু (ঘুড়ি) পেয়েছেন ৩৫১৫ ভোট।
১২ নম্বর ওয়ার্ড: সিকন্দর আলী (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট) ৩২২৬ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুল কাদির (লাটিম) ১৭৫১ ভোট পেয়েছেন।
১৩ নং ওয়ার্ড: শান্তনু দত্ত সনতু (ঘুড়ি) ২৭১২ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী পেয়েছেন বিশ্বজিৎ দাস (ঝুড়ি) ১৫৪৯ ভোট পেয়েছেন।
১৪ নম্বর ওয়ার্ড: নজরুল ইসলাম মুনিম (ঘুড়ি) ৩৬৮৭ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোস্তাফিজুর রহমান (টিফিন ক্যারিয়ার) পেয়েছেন ১৪৩৪ ভোট।
১৫ নম্বর ওয়ার্ড: ছয়ফুল আমিন বাকের (টিফিন ক্যারিয়ার) ২৮৪৮ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মুজিবুর রহমান (ঘুড়ি) ১৭৫১ ভোট পেয়েছেন।
১৬ নম্বর ওয়ার্ড: আব্দুল মুহিত জাবেদ (টিফিন ক্যারিয়ার) ২৯১৮ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী সাব্বির আহমদ চৌধুরী (মিষ্টি কুমড়া) ২৪২৬ ভোট পেয়েছেন।
১৭ নম্বর ওয়ার্ড: রাশেদ আহমদ (ট্রাক্টর) ৪২৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হে য়ছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দেলওয়ার হোসেন সজিব (ঘুড়ি) ৩৪৬১ ভোট পেয়েছেন।
১৮ নম্বর ওয়ার্ড: এবিএম জিল্লুর রহমান উজ্জ্বল (মিষ্টি কুমড়া) ২১৯৬ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সালমান চৌধুরী (টিফিন ক্যারিয়ার) ১৩২০ ভোট পেয়েছেন।
১৯ নং ওয়ার্ড: এস এম শওকত আমিন তৌহিদ (ঠেলাগাড়ি) ৩১২০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী (ঘুড়ি) ২৩৪১ ভোট পেয়েছেন।
২০ নম্বর ওয়ার্ড: বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন আজাদুর রহমান আজাদ।
২১ নম্বর ওয়ার্ড: আব্দুর রকিব তুহিন (লাটিম) ৪২২১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাহেদুর রহমান (ঘুড়ি) ২৩০৯ ভোট পেয়েছেন।
২২ নম্বর ওয়ার্ড: ছালেহ আহমদ সেলিম (টিফিন ক্যারিয়ার) ২৩৪২ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন (রেডিও) ১৩৪০ ভোট পেয়েছেন।
২৩ নম্বর ওয়ার্ড: মোস্তাক আহমদ (ঠেলাগাড়ি) ২০৭৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফারুক আহমদ (লাটিম) ২০৫৮ ভোট পেয়েছেন।
২৪ নম্বর ওয়ার্ড: সোহেল আহমদ রিপন (ঠেলাগাড়ি) ২৬৩৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হুমায়ুন কবীর সুহিন (ঘুড়ি) ২৪২১ ভোট পেয়েছেন।
২৫ নম্বর ওয়ার্ড: তাকবির ইসলাম পিন্টু (ঘুড়ি) ৩৩৮০ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আশিক আহমদ (ঝুড়ি) ২৫৮১ ভোট পেয়েছেন।
২৬ নম্বর ওয়ার্ড: মোহাম্মদ তৌফিক বক্স লিপন (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট) ৬৬৪০ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সেলিম আহমদ রনি (ঘুড়ি) ১৭৮৯ ভোট পেয়েছেন।
২৭ নম্বর ওয়ার্ড: আজম খাঁন (ঘুড়ি) ৩২৫৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুল জলিল নজরুল (টিফিন ক্যারিয়ার) ২১০২ ভোট পেয়েছেন। এ ওয়ার্ডের হবিনন্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্র স্থগিত রয়েছে।
সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলররা হচ্ছেন :
সংরক্ষিত-১ আসনে (১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ড) : সালমা সুলতানা (চশমা) ৪৬৩৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কোহিনূর ইয়াসমীন ঝর্ণা (জিপ গাড়ি) ৩৯১৩ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত-২ আসনে (৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড) : কুলসুমা বেগম পপি (হেলিকপ্টার) ৫৮৩২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাহানারা খানম মিলন (বই) ৩০০৮ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত-৩ আসনে (৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড) : রোকসানা খানম (ডলফিন) ৪৭৬৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শ্যামলী সরকার (মোবাইল ফোন) ৪৬৬০ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত-৪ আসনে (১০, ১১ ও ১২ নং ওয়ার্ড) : মাসুদা সুলতানা (চশমা) ১১১৪৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোছা. রুহেনা খানম মুক্তা (জিপগাড়ি) ৬০৮৭ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত-৫ আসনে (১৩, ১৪ ও ১৫ নং ওয়ার্ড) : শাহানা বেগম শানু (ডলফিন) ৬৮৫৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। দিবা রাণী দে (আনারস) ৫৭৫০ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত-৬ (১৬, ১৭ ও ১৮ নং ওয়ার্ড) : শাহানারা বেগম (বই) ৮১৬৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কামরুন নাহার চৌধুরী তিন্নি (আনারস) ৩৯৭১ ভোট পেয়েছেন।
সংরক্ষিত-৭ আসনে (১৯, ২০ ও ২১ নং ওয়ার্ড) : নাজনীন আকতার কণা (জিপ গাড়ি) ৪১৫৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নার্গিস সুলতানা (চশমা) ৪১৫৫ সমান সমান ভোট পাওয়ায় সেখানে পুনরায় নির্বাচন হবে।
সংরক্ষিত-৮ আসনে (২২, ২৩ ও ২৪ নং ওয়ার্ড) : রেবেকা আক্তার লাকী (জিপ গাড়ি) ৫৯৭৭ ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সালেহা কবীর শেপী (চশমা) ৩৯৩৫ ভোট পেয়েছেন। কিন্তু ১১৬ নং কেন্দ্রটির ভোট গ্রহণ স্থগিত রয়েছে।
সংরক্ষিত-৯ আসনে (২৫, ২৬ ও ২৭ নং ওয়ার্ড) : এডভোকেট রোকসানা বেগম শাহনাজ (চশমা) ৭৯৭০ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সামিরুন নেসা (গ্লাস) ৫৪৭৫ ভোট পেয়েছেন।