শহীদ জিয়ার শাহাদাত বার্ষিকীতে মহানগর বিএনপির আলোচনা সভায় বক্তারা ॥ মুক্তিযুদ্ধে বীর উত্তম এবং দেশ পরিচালনায় সফল এক রাষ্ট্রনায়নের নাম শহীদ জিয়া

0
14

সিলেট মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেছেন- ৩০ মে বাংলাদেশে জাতীয় জীবনে এক শোকের দিন। ১৯৮১ সালের এই দিনে কতিপয় বিপথগামী উচ্ছৃঙ্খল সেনা কর্মকর্তা বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা, সার্কের স্বপ্নদ্রষ্টা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তমকে নির্মমভাবে হত্যা করে। শহীদ জিয়ার সুযোগ্য নেতৃত্বে দেশে যখন শান্তি ও উন্নয়নের সুবাতাস এবং সমৃদ্ধ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। সেই সময়ে গণতন্ত্রের কবর রচনা করে নতুন করে বাকশাল কায়েমই ছিল এই হত্যাকান্ডের কারণ। শহীদ জিয়াকে হত্যা করে যারা দেশ থেকে জাতীয়তাবাদী চেতনাকে উপড়ে ফেলতে চেয়েছিল তাদের ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী অবৈধ সরকার শহীদ জিয়ার অবদানকে অস্বীকার করে জিয়া পরিবারকে নিশ্চিহ্ন করতে সুগভীর ষড়যন্ত্র করছে। গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে রাজনীতির ময়দান থেকে মাইনাস করতেই ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। তিন বারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রীর মুক্তি নিয়ে বাকশালী সরকার টালবাহানা শুরু করেছে। সকল ষড়যন্ত্র নস্যাত করতে শহীদ জিয়ার জীবনী থেকে শিক্ষা নিতে হবে।
বুধবার মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে সিলেট মহানগর বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত কথা বলেন। মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইনের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আজমল বখত্ চৌধুরী সাদেক এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্ঠা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির। নগরীর দরগাগেইটস্থ কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের শহীদ সুলেমান হলে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভার শেষ পর্যায়ে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন এবং বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন মহানগর ওলামা দলের সভাপতি মাওলানা মঈনুদ্দিন ফয়েজ। আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে মহানগর বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির শাহীন, সালেহ আহমদ খসরু, সিসিক প্যানেল মেয়র রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, জিয়াউল হক জিয়া, মুফতী বদরুন নুর সায়েক, ডা: নাজমুল ইসলাম, অধ্যাপিকা সামিয়া বেগম চৌধুরী, আমির হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আতিকুর রহমান সাবু, হুমায়ুন আহমদ মাসুক, সাংগঠনিক সম্পাদক মুকুল মোর্শেদ, মাহবুব চৌধুরী, দফতর সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল করিম আলো, মহানগর মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা নিগার সুলতানা ডেইজী, মহানগর জাসাসের সাধারণ সম্পাদক তাজ উদ্দিন মাসুম।
উপস্থিত ছিলেন- মহানগর সহ-সভাপতি এডভোকেট ফয়জুর রহমান জাহেদ, আব্দুর রহিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শামীম সিদ্দিকী, এমদাদ হোসেন চৌধুরী, আলী হোসেন বাচ্চু, হাজী মিলাদ, প্রচার সম্পাদক শামীম মজুমদার, প্রকাশনা সম্পাদক জাকির মজুমদার, স্বাস্থ্য সম্পাদক ডা: আশরাফ আলী, আপ্যায়ন সম্পাদক আফজাল উদ্দিন, স্বেচ্ছাসেবক সম্পাদক হাবিব আহমদ চৌধুরী শিলু, পরিবেশ সম্পাদক আবুল কালাম, সহ-কোষাধ্যক্ষ শেখ মু. ইলিয়াস আলী, সহ-সমবায় সম্পাদক শরীফ উদ্দিন মেহেদী, সহ-প্রচার সম্পাদক কয়সর চৌধুরী, অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- নেওয়াজ বখত তারেক, মাহবুবুল হক চৌধুরী, সাইদুর রহমান সুজান, আমজাদ আলী, আব্দুস সোবহান, এম. মখলিছ খান, মঈনুল হক স্বাধীন, বাবর আহমদ, রিহাদুল হাসান রুহেল, মো: সালাউদ্দিন ও মাহবুব আহমদ চৌধুরী প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি