মানুষকে সচেতন করতে চৌহাট্টায় পুলিশের হেলমেট ও লুকিং গ্লাসের দোকান !

0
10

স্টাফ রিপোর্টার :
নগরীর গুরুত্বপূর্ণ চৌহাট্টা পয়েন্টে হেলমেট ও লুকিং গ্লাসের দোকান বসিয়েছে মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ। ওই দোকান থেকে হেলমেট ও লুকিং গ্লাসবিহীন মোটরসাইকেল আরোহীদের কাছে হেলমেট ও লুকিং গ্লাস বিক্রয় করা হচ্ছে। মানুষকে সচেতন করতেই এমন ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। পয়েন্টের পুলিশ চেকপোস্টের সামনেই সড়কের উপর অস্থায়ীভাবে বসানো হয়েছে দোকানটি।
পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশনানুযায়ী গতকাল শনিবার থেকে শুরু হয়েছে সচেতনতামূলক ট্রাফিক ক্যাম্পেইন। তারই অংশ হিসেবেই চৌহাট্টা মোড়ে নগরীর মোটরসাইকেল আরোহীদের সচেতনতাবৃদ্ধির লক্ষ্যে নেয়া হয়েছে এ ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। পুলিশের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন আরোহীরাও। বেশ কয়েকজনকে তাৎক্ষণিক হেলমেট ও লুকিং গ্লাস ক্রয় করতে দেখা গেছে। যাদের হেলমেট ও লুকিং গ্লাস ছিলনা তাৎক্ষণিকভাবে ক্রয় করতেও পারেননি শুধুমাত্র তাদের যানবাহনে মামলা করা হয়েছে। এসময় অন্তত ১০/২০টি মোটরসাইকেল আরোহীকে মামলা করা হয়।
শনিবার বেলা ১১ টা থেকে নগরীতে শুরু হয় অস্থায়ী এ দোকানের কার্যক্রম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার পরিতোষ ঘোষ, মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার ফয়সল মাহমুদ, উপ-পুলিশ কমিশনার দক্ষিণ মো. আজবাহার আলী শেখ, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার বিভূতি ভূষণ বড়ুয়া, কোতায়ালি থানা সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার গোলাম দস্তগীর, সিনিয়র সহকারি পুলিশ কমিশনার পলাশ রঞ্জন দে (ট্রাফিক), সহকারি পুলিশ কমিশনার ট্রাফিক আশিদুর রহমান, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর প্রশাসন হাবিবুর রহমান, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মো. হানিফ মিয়া, নিরাপদ সড়ক চাই মহানগর শাখার সভাপতি এম ইকবাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আবদুল হাদী পাভেল, জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক লোকমান আলী, সিলেট পুলিশ লাইন হাই স্কুলের শিক্ষক শামসুজ্জামান, ফারহানা ইয়াসমিন, নজরুল হক প্রমুখ। প্রতি সপ্তাহে শুধুমাত্র শনিবার এ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হবে।