বিয়ানীবাজারে ছাত্রলীগ কর্মীকে কুপিয়ে আহত

0
9

বিয়ানীবাজার থেকে সংবাদদাতা :
বিয়ানীবাজার পৌরশহরে কলেজ রোডে ছাত্রলীগ কর্মী রেজওয়ান হোসেনকে (২০) দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছে কয়েকজন দুর্বৃত্তরা। গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় পৌরশহরের কলেজ রোডের সমবায় মার্কেটে দেশীয় অস্ত্রধারী ১০/১২জন অজ্ঞাত যুবক তাকে কুপিয়ে জখম করে। পূর্ব বিরোধের জের ধরে তার উপর প্রতিপক্ষরা হামলা চালায়। গুরুতর আহত অবস্থায় ছাত্রলীগ নেতা রেদওয়ানকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট প্রেরণ করা হয়। আহত রেজওয়ান বিয়ানীবাজার পৌরসভার কসবা এলাকার মোকামিল আলীর পুত্র। সে ছাত্রলীগ প্রপার গ্রুপের কর্মী বলে জানা গেছে। তবে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের পরিচয় এখনো শনাক্ত করা যায়নি। এ ঘটনায় রেজওয়ানের পরিবারের পক্ষ থেকে বিয়ানীবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।
প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পৌরশহরে কলেজ রোডের সমবায় মার্কেটের আসার পর অজ্ঞাত ১০/১২জন যুবক রেজওয়ানকে ধাওয়া করে। এ সময় সে দৌড়ে সমবায় মার্কেটের অপরপ্রান্তের আরপি প্লাজায় আশ্রয় নেয়। এ ভবনের ৫তলা থেকে সন্ত্রাসীরা তাকে ধরে নীচে নিয়ে আসে। এ সময় তার পায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ দেয়া হয়। এ সময় রেজওয়ানের চাচা সমবায় মার্কেটের জামিল হোসেন এগিয়ে এসে তাকে রক্ষা করেন। জামিলও আঘাত পেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
আহত অবস্থায় রেজওয়ানকে উদ্ধার করে স্থানীয় প্রথমে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। আঘাতটি গুরুতর হওয়া তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কর্তব্যরত চিকিৎসক সিলেট এমএজি ওসমানি হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অবনী শংকর কর বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক। আমরা হামলাকারিদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছি। তাদের নাম পরিচয় আমরা পেয়ে গেছি। তিনি বলেন, এ ঘটনায় আহত রেজওয়ানের পরিবার থেকে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নেয়ার কথা আমাদের বলেছে। মামলা হোক বা না হোক অপরাধীদের আমরা আজকের মধ্যে গ্রেফতার করবো।
এদিকে গত শুক্রবার সন্ত্রাসী কার্যক্রমে অভিযোগে রেজওয়ান হোসেনকে পুলিশ আটক করেছিলো। তার কাছ থেকে অভিযুক্ত বিষয়ে আর না জড়ানোর অঙ্গীকারনামা (মুছলেখা) নিয়ে পুলিশ তাকে আজ সকালে ছেড়ে দেয়। দুপুরে দিকে সে সমবায় মার্কেটে আসলে পূর্ব থেকে ওৎপেতে থাকায় সন্ত্রাসীরা তার উপর হামলা চালায়।