নবীগঞ্জে গহীন বন থেকে নিখোঁজের ৫ দিন পর কিশোরের মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার

0
5

হবিগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা :
হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার পানিউমদা ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ের ভিতর থেকে নিখোঁজের ৫দিন পর কাওছার মিয়া (১৪) নামে এক কিশোরের মাথা বিহীন লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যায় পানি উমদা ইউনিয়নের চাতল গ্রামের নিকটবর্তী একটি পাহাড়ের নিকট থেকে থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়। কাওছার পানিউমদা ইউনিয়নের চলতা গ্রামের হায়দর আলীর পুত্র। এ ঘটনায় চাতল গ্রামের কাছুম আলীর পুত্র দুরুদ মিয়া (২৬) নামে একজন আটক করেছে পুলিশ।
জানা যায়, গত (২৯ মে) মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর কাওছার তাদের বাড়ির নিকটে স্থানীয় একটি দোকানে যায়। সেখান থেকে রাত সাড়ে ১১টার দিকে একই এলাকার কাছুম আলীর ছেলে দুরুদ মিয়ার সঙ্গে বাড়ির ফেরার পথে নিখোঁজ হয় কাওছার। কাওছারে সন্ধান না পেয়ে নবীগঞ্জ থানায় একটি জিডি করেন কাওছারের পিতা হায়দর আলী। শনিবার বিকেলে ওই এলাকায় একটি মাথা বিহীন লাশ দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন। কাওছারের শরিরে বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে ।
পরে খবর পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার নবীগঞ্জ – বাহুবল সার্কেল পারভেজ আলম চৌধুরী নবীগঞ্জ থানার ওসি এস এম আতাউর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং লাশ করা হয়। এটি পূর্বপরিকল্পিত হত্যাকান্ড বলে দাবী করেন কাওছারের পিতা হায়দর মিয়া।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এস.এম আতাউর রহমান বলেন, ৫ দিন আগে নিখোঁজ হওয়ার পর তারা থানায় জিডি করে এবং পুলিশ এ বিষয়ে তদন্তও করে, ধারণা করা হচ্ছে এটা পূর্বপরিকল্পিত হত্যাকান্ড। এ বিষয়ে সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ আলম চৌধুরী বলেন, ইতিমধ্যে পুলিশ একজনকে আটক করেছি, আশা করি শীঘ্রই এ হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচন হবে। এ ঘটনায় কাওছারের পিতা হায়দর আলী বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।