জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবসে বিএনপি অঙ্গ সংগঠনের নানা কর্মসূচি ॥ জিয়াউর রহমান না হলে দেশের ইতিহাস অন্যরকম রচিত হতো

0
6

ok-7জিয়া পরিষদ জেলা ও মহানগর শাখা : সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন, ৭ নভেম্বরের চেতনাকে বুকে লালন করে জাতীয়তাবাদী চেতনায় আমাদেরকে উজ্জীবিত হতে হবে। গণতন্ত্র, মানবাধিকার পুনরুদ্ধারে আমাদেরকে ঘরে বসে থাকলে চলবে না। রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে হবে। তিনি আরো বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মতো একজন দেশপ্রেমিক, রাষ্ট্রনায়ক বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের জন্য খুবই প্রয়োজন। ৭ নভেম্বর শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে বিপ্লবের মাধ্যমে উদ্ধার করা না হলে দেশের ইতিহাস আজ অন্যরকম রচিত হতো। তিনি শহীদ জিয়াউর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে দেশপ্রেমিক সর্বস্তরের জনতাকে নিয়ে গণআন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।
গতকাল শুক্রবার সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে জিয়া পরিষদ সিলেট জেলা ও মহানগর শাখা কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
জিয়া পরিষদ সিলেট মহানগর কমিটির সভাপতি ড. মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে ও জিয়া পরিষদ সিলেট জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট আল আসলাম মুমিন এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন জিয়া পরিষদ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক, সিলেট জেলা সভাপতি প্রকৌশলী আশফাক আহমদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি কেন্দ্রিয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, বিএমএ কেন্দ্রিয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি ডা. শামিমুর রহমান, মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি বদরুজ্জামান সেলিম, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আহমদ, বিএনপি নেতা মিসবাউল কাদির ফাহিম, যুবদল নেতা মামুনুর রশিদ মামুন, জিয়া পরিষদ জেলা সাধারণ সম্পাদক এম সিরাজুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জিয়া পরিষদ সিলেট মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক ডা. আরিফ আহমদ মোমতাজ রিফা।BNP Mukttijuda dol pic-07-11-14
বক্তব্য রাখেন জিয়া পরিষদ সিলেট মহানগর কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি নিজাম উদ্দিন জায়গীরদার, সহ-সভাপতি সৈয়দ রেজাউল করিম আলো, যুগ্ম সম্পাদক শামীম মজুমদার, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মোঃ আব্দুল জলিল খান, প্রভাষক জুবায়ের আহমেদ, সাহাবুদ্দিন, সাঈদ আহমদ শাহিন, ফাইয়াজ হোসেন ফরহাদ, শাহজাহান সেলিম বুলবুল, জয়নাল আবেদীন, শরীফ উদ্দিন মেহেদী, মোঃ সফিক নূর, আব্দুস সোবহান, সালাউদ্দিন, আজাদ আহমদ, আশফাকুর রহমান, দুলাল রেজা, আব্দুল মুকিত সুমেল, মোহাম্মদ আলী, সামসুদ্দিন, শাহ আলম প্রমুখ।
মহানগর মুক্তিযোদ্ধা দল : সিলেট মহানগর মুক্তিযোদ্ধা দলের আহবায়ক সালেহ আহমদ খসরু বলেছেন, এবারের এই ঐতিহাসিক দিবসের মূল চেতনা হচ্ছে, যে ক্রান্তিলগ্নে ঐতিহাসিক মুহূর্তে শহীদ জিয়া দেশকে প্রথম মুক্তির স্বাদ দিয়েছিলেন তেমনি দেশনায়ক তারেক রহমান যথাসময়ে এদেশে গণতন্ত্রের সুবাতাস উপহার দিতে প্রয়োজনে নতুন বিপ্লবের ডাক দিবেন এবং তার হাত দিয়েই গড়ে উঠবে স্বনির্ভর বাংলাদেশ। এদেশের সাদামাটা মানুষ জানে এ শুধু নয় তারেক জিয়া এ মোদের চেতনার জিয়া। গতকাল ঐতিহাসিক জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দল সিলেট মহানগর এর উদ্যোগে আয়োজিত র‌্যালী পরবর্তি সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। মহানগর মুক্তিযোদ্ধা দলের সদস্য সচিব ডাঃ নাজমুল ইসলামের পরিচালনায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে জেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক আলী আহমদ বলেন, দেশ আজ এক অজানা গন্তব্যে ধাবিত এবং প্রতিবেশী সাম্রাজ্যবাদ তার কালো থাবা মেলে ধরেছে, এর হতে মুক্তি পেতে দলমত নির্বিশেষে ভেদাভেদ ভুলে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে সঙ্ঘবদ্ধ ও পরিকল্পনাপূর্ণ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে আর এর মধ্য দিয়েই জনাব তারেক রহমান এর হাতকে শক্তিশালী করে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ সুপ্রতিষ্ঠিত করে দেশে শান্তির সুবাতাস ছড়িয়ে দিতে হবে। র‌্যালী পরবর্তী সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা বিএনপি নেতা ও সাবেক ছাত্র দল সাধারণ সম্পাদক মিসবাহুল কাদির ফাহিম বলেন আগামী বিপ্লব দেশনায়ক তারেক রহমানের হাত ধরে হবে ও বাংলাদেশ স্বৈরাচার মুক্ত হবে। সমাবেশে অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা দলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আলী আহমদ দবির, লাল্লিক আহমদ চৌধুরী, সহিদুল হোসেন মামুন, সেলিম খান জালালাবাদী, আব্দুর রব, মিয়া মজনু, বি এন পি নেতা আব্দুস শুকুর, যুবদল নেতা নয়াজিস সাকি, শিপলু আহমদ চৌধুরী, সইয়দ এমরান হোসেন, রুহুল আমীন রিপন, সামিম আহমদ চৌধুরী, অহিদ আহমদ, নাজমুল, জেলা ছাত্র দল নেতা এবাদুর রহমান চৌ, জাকির, বেলাল, আনোয়ার, জামিল, জুবের, জাবের, তারেক, এমরান, মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম নেতা রম্মান আহমদ, দেলোয়ার আহমদ, আল আমীন, নাহিদ আহমদ, আহমদ হেলাল, মাহমুদ হোসেন, সুলতান নুরু, এমদাদুল হক সামু, জয় সিকদার, মামুন হোসেন শাহিন, তুহিন, আব্দুল আজিজ সহ প্রমুখ নেতা কর্মীবৃন্দ। শোভাযাত্রাটি গতকাল বিকাল ৪টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে শুরু করে নগরীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কোর্ট পয়েন্টে এক সমাবেশে মিলিত হয়। DSC_0538
জেলা ছাত্রদল : ৭ নভেম্বরের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে অবৈধ সরকারের পতন আন্দোলন তরান্বিত করতে হবে। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান এ দেশের বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা। মহান এই নেতার দয়ায় এ দেশে আজ অনেকে রাজনীতি করার সুযোগ পাচ্ছে। ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস ছিলো সিপাহী জনতার বিজয়ের দিন। এদিন স্বাধীনতার ঘোষক বীর মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান কে ক্ষমতার মসনদে বসিয়েছিলো দেশবাসী। জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে জেলা ছাত্রদল আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন সিলেট জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাঈদ আহমদ।
গতকাল শুক্রবার জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল সিলেট জেলা শাখার উদ্যোগে এক আলোচনা সভা  ছাত্রদলের মিরাবাজারস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা শাখার সভাপতি সাঈদ আহমদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রাহাত চৌধুরী মুন্নার পরিচালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, জেলা ও মহানগর ছাত্রদল নেতা জয়দেব চক্রবর্তী জয়ন্ত, জয়নাল আহমদ, মিফতাউল কবির, তারেক আহমদ, জয়নুল আবেদিন, আবুল হাসনাত,  তছির আলী,  জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক মকসুদ আহমদ, লিটন কুমার দাস নান্টু, আমিনুল ইসলাম সাজু, মনোজ দেব, কাওসার আহমদ রানা, ইমু চৌধুরী,  রেজোওয়ান আহমদ, আশরাফ উদ্দিন রুবেল, জুবের আহমদ, বদরুল আজাদ রানা, সামসুল ইসলাম লেইছ, আবুল বাশার, মুশফিকুর রহমান মনি, জাকারিয়া আহমদ, আব্দুল মোতাকাব্বির সাকি, দেলোওয়ার হোসেন, আবু ইয়ামিন চৌধুরী, আজিজুর রহমান, নাজমুল ইসলাম প্রমুখ।
মহানগর মহিলা দল : বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলাদল সিলেট মহানগর এর উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকালে নগরীর তালতলাস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সহ সম্পাদিকা ও সিলেট মহানগর সভানেত্রী অধ্যাপিকা সামিয়া চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদিকা এডভোকেট রোকসানা আক্তার শাহনাজের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন মহানগর সহ সভানেত্রী আবিদা সুলতানা, যুগ্ম সম্পাদক ফাতেমা জামান রোজী, শাহনাজ বেগম মুন্না, রাহেলা জেরিন কানন,  সাংগঠনিক সম্পাদিকা মিনারা হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদিকা রেহেনা ফারুক শিরিন, প্রচার সম্পাদক খালেদা বেগম হেনা, দপ্তর সম্পাদিকা বিলিকিস জাহান চৌধুরী, এডভোকেট রিনা আক্তার, মুক্তা রহমান, হাফছা খানম, সায়মা বেগম প্রমুখ। সভায় সভাপতির বক্তব্যে সামিয়া চৌধুরী বলেন, ঐতিহাসিক জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবসের চেতনা নিয়েই দেশের জনগণের পাশে দাঁড়াতে হবে। তাই শহীদ জিয়ার আদর্শ ও সংহতি দিবসের চেতনা নিয়ে জাতীয়তাবাদী শক্তি এক যোগে কাজ করতে হবে। Rally copy
স্বেচ্ছাসেবক দল ও জাসাস : বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) যুক্তরাজ্যের সাসেক্স রিজিয়নের সাধারণ সম্পাদক, স্বেচ্ছাসেবক দল যুক্তরাজ্য শাখার সাবেক সভাপতি, প্রবাসী কমিউনিটি নেতা এম এ মুকিত বলেছেন দেশ ও জাতির এক ক্রান্তিলগ্নে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বিপর্যস্ত বাংলাদেশের দায়িত্ব নিতে বাধ্য হয়েছিলেন। তাঁর এই মহানুভবতা ও সাহসিকতায় দেশ রক্ষা পেয়েছিল গৃহযুদ্ধ আর সীমাহীন রক্তপাত থেকে। শহীদ জিয়া বিশৃংখল আর ভঙ্গুর অবস্থা থেকে দেশকে টেনে তুলেছিলেন স্বনির্ভরতার প্রতীক হিসেবে। তাঁর এই অবদান জাতি অনাদিকাল শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে। এম এ মুকিত ৭ নভেম্বরের ঐতিহাসিক যৌক্তিকতা অনুধাবন করে পূর্বের মতো জাতীয়ভাবে বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন এবং সরকারি ছুটি কার্যকর করার দাবি জানান।
গতকাল শুক্রবার বিকেলে নগরির ষ্টেশন রোডস্থ একটি হোটেল মিলনায়তনে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল ও জাসাস সিলেটের সদর দক্ষিণ উপজেলা শাখার যৌথ আয়োজনে ‘শহীদ জিয়া ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। স্বেচ্ছাসেবক দল সদর দক্ষিণ উপজেলা শাখার আহবায়ক কামাল হাসান জুয়েলের সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম আহবায়ক মল্লিক আহমদের পরিচালনায় এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট খালেদ জুবায়ের, উপজেলা শাখার যুগ্ম আহবায়ক নুরুল ইসলাম রুহেল, শাহেদ খান স্বপন, দিলোয়ার হোসেন রানা, উপজেলা জাসাস-এর আহবায়ক সারোয়ার খান মাজেদ, স্বেচ্ছাসেবক দল ও জাসাসের অন্যতম নেতা দেওয়ান নিজাম খান, মফিজুর রহমান জুবেদ, কামরান নুমান, আবু মুসা, ফুল মিয়া, জয়নাল আবেদীন, শাহেদ আহমদ, এনামুল হক টিপু, দিহান আহমদ হারুন, জাহাঙ্গীর আলম, ফখরুল ইসলাম, সুজন আহমদ, আলাল আহমদ, শাহাবুদ্দিন আহমদ, আওলাদ হোসেন রেজা, বাচ্চু মিয়া, আব্দুল্লাহ মোঃ আদিল, সাইদুল ইসলাম মিঠু, আফসর আহমদ, নাছির আহমদ, লাহিন আহমদ, উজ্জ্বল আহমদ, বাবুল আহমদ, সেলিম আহমদ, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, জয়নাল আহমদ, শহীদ আহমদ, রাসেল আহমদ, আবদাল আহমদ, আলেক আহমদ, সাজু আহমদ, আব্দুল হাদী প্রমুখ। শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করা হয়।
জকিগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা জানিয়েছেন : জকিগঞ্জ উপজেলা ও পৌর বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল ঐতিহাসিক ৭ নভেম্বর বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে জকিগঞ্জে র‌্যালী ও আলোচনা সভা করেছে শুক্রবার। উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির আহবায়ক ইকবাল আহমদের সভাপতিত্বে পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস শাকুরের পরিচালনায় স্থানীয় ডাক বাংলোতে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য দেন পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুল জলিল, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ,পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম সাগর, মানিকপুর ইউপি বিএনপির সভাপতি মাজহারুল ইসলাম সেলিম, বীরশ্রী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রুহুল অমিন, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক হাসান আহমদ, পৌর ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন হিরা, উপজেলা ছাত্রদল পাঠাগার সম্পাদক শাব্বির আহমদ, পৌর ছাত্রদল নেতা জাহেদ আহমদ, আব্দুর রউফ প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন বীরশ্রী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুল আহাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল কাদির, জকিগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুস শহীদ চুনু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাইয়ূম মুজিব, সাংগঠনিক সম্পাদক সুলেমান আহমদ চুনু, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আব্দুল আহাদ তেরা, মাহতাব আহমদ, আব্দুল গফুর, সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল ইসলাম, শিব্বির আহমদ, সুমন আহমদ, সালেহ আহমদ, রাসেল আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস শহীদ বকুল, কামরুল ইসলাম, বিএনপি নেতা বজলুর রহমান মিলু, শফিকুর রহমান, হিফজুর রহমান, যুবদল নেতা কাউসার আহমদ, আহাদুর রহমান মুন্না, আব্দুল কাদির, পৌর ছাত্রদল সহসভাপতি শামসুদ্দোহা, ছাত্রদল নেতা ফজলে আশরাফ মান্না, লিটন আহমদ, জুবেল আহমেদ, রুহেল আহমদ, আব্দুর রহমান প্রমুখ।
ছাত্রদল : ঐতিহাসিক ৭ নভেম্বর বাংলাদেশের ইতিহাসে অবিস্মরণীয় দিন। ঐদিন সিপাহী জনতা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বন্দিদশা থেকে মুক্ত করে আনেন। তিনি ছিলেন বাংলার মানুষের হৃদয়ের স্পন্দন। আজও বাংলার মানুষের হৃদয়ে অম্লান হয়ে বেছে আছেন। গণতন্ত্র ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতে শহীদ জিয়াউর রহমান এদেশে বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবচন করেন। বর্তমানে অনির্বাচিত বাকশালী সরকার বাংলাদেশের মানুষের সাথে প্রতারণা করে যাচ্ছে। তাদের কাছে গণতন্ত্র, স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ত্ব হুমকির মুখে। হত্যা, গুম, খুন, নির্যাতন, মিথ্যা মামলা, পুলিশী নির্যাতন করে যাচ্ছে অবৈধ সরকার। বাকশালীদের হাত থেকে গণতন্ত্র ও দেশের মানুষকে মুক্ত করতে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে গণআন্দোলনে অংশ নিয়ে অবৈধ সরকারকে হঠাতে হবে।
জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদল নগরীতে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করে। র‌্যালী শেষে সংক্ষিত সমাবশে বক্তারা এ কথাগুলো বলেন।
উক্ত র‌্যালীতে উপজেলা, ওয়ার্ড, কলেজের ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করে।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, সিলেট জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাফেক মাহবুব, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবল হক চৌধুরী, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক আহমদ চৌধুরী ফয়েজ, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল করিম জেহিন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শাকিল মুর্শেদ, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সমাজ সেবা সম্পাদক রেজাউল করিম নাছন, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুল মজিদ, সদর থানা ছাত্রদলের সভাপতি তুহিনুর আহমদ, ছাত্রদল নেতা লোকমান তালুকদার, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক লোকমান আহমদ, ছাত্রদল নেতা এখলাছ উদ্দিন মুন্না, নাজিম পান্না প্রমুখ।
সিলেট ছাত্রদলের বিদ্রোহী গ্র“প : ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের প্রতি অকৃত্রিম শ্রদ্ধা জানিয়ে সিলেট জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নবগঠিত জেলা ও মহানগর কমিটি বিরোধী আন্দোলনকারী বিদ্রোহীদের উদ্যোগে শুক্রবার বিকাল ৪ টায় এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি ঐতিহাসিক কোর্ট পয়েন্ট থেকে শুরু করে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এসে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশে নেতৃবৃন্দরা বলেন, ৭ নভেম্বর জাতীয় জীবনের এক  ঐতিহাসিক দিন। ১৯৭৫ সালে ঐ দিন আমরা স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ হয়ে ছিলাম। সেই একই চেতনাকে বুকে ধারণ করে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্ব গণতন্ত্র পুন:প্রতিষ্ঠা ও দেশের স্বাধীনতা রক্ষায় আবার সুদৃঢ় জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।
বক্তারা আরো বলেন,যারা ঐতিহাসিক বিপ্লব সংহতি দিবস পালন না করে, ঘরে বসে থাকে। তাদের দ্বারা এই অবৈধ সরকারের পতন সম্ভব নয়। তাই অবিলম্বে এই অবৈধ পকেট কমিটি বাতিল করে নতুন কমিটি প্রদান করার জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দর কাছে দাবি জানান।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সিলেট জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাক সৈয়দ সাফেক মাহবুব, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ সাধারণ সম্পাদক আহমদ চৌধুরী ফয়েজ, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল করিম জেহিন, জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ সাংগঠনিক সম্পাদক শাকিল মুর্শেদ, মহানগর ছাত্রদল নেতা রেজাউল করিম নাচন, লোকমান তালুকদার, লোকমান আহমদ, এখলাছুর রহমান মুন্না, নাজিম উদ্দিন পান্না প্রমুখ।