গোলাপগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু, আহত ৭

0
5

গোলাপগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা :
গোলাপগঞ্জে রাস্তা পারা পারের সময় কার-সিএনজি অটোরিক্সার সংঘর্ষে প্রাণ গেল এক এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া শিক্ষার্থীর। সে উপজেলার ফুলবাড়ী ইউপির কায়স্থগ্রামের কৃষক জুরু মিয়ার প্রথম কন্যা তাজিনা আক্তার এমি (১৮)। ওই শিক্ষার্থী ফুলবাড়ী বরায়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়। গত বছর এসএসসি পরীক্ষায় রেজাল্ট খারাপ করলেও এ বছর সে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়। কলেজ জীবনের যাত্রা শুরু হল এমির। গতকাল দুপুর প্রায় সাড়ে ১২টায় স্থানীয় আবু বক্কর মাদ্রাসায় কারি’আনা পড়া শেষে তার ফুফাতো বোন জেনি বেগম (২০) ও তাওহিদ আহমদ (৭) নামে তার এক চাচাতো ভাই এবং প্রতিবেশি সুমাইয়া আক্তার (৬) কে সাথে নিয়ে বাড়ী ফিরছিল। ঘটনার সময় সে কায়স্থগ্রাম নয়া মসজিদের সামন দিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিল। এ সময় দ্রুত গতিতে আসা সিলেটগামী প্রাইভেট কার (ঢাকা মেট্রো-খ-১১-৫৫৯৩) সিএনজি অটোরিক্সা (সিলেট-ট-১২-৪৩০০) এর সঙ্গে সংঘর্ষ হলে সিএনজির নিচে পৃষ্ট হয় নিহত ও আহতরা। ঘটনাস্থলেই এমির মৃত্যু ঘটে। এ সময় স্থানীয়রা সিএনজি চালকসহ জেনি, সুমাইয়া ও তাওহিদকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। খবর পেয়ে দুপুর ১টায় গোলাপগঞ্জ মডেল থানার এসআই হেলাল সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার আলামত জব্দ করেন এবং দুটি গাড়ী থানায় নিয়ে আসেন। ঘটনার পরপরই প্রাইভেট কারের চালক পালিয়ে যায়। আহতদের মধ্যে সুমাইশা আক্তারের অবস্থা আশংকাজনক বলে স্বজনরা জানান। রাত ১০টা ৩০মিনিটে ফুলবাড়ী কায়স্থগ্রাম নয়া মসজিদে নিহতের জানাযা শেষে স্থানীয় কবর স্থানে দাফন করা হয়।
এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ওসি একেএম ফজলুল হক শিবলীর সাথে আলাপ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এক মেয়ে নিহতের খবর পাওয়া গেছে। এদিকে নিহত শিক্ষার্থী এমি কারি’আনা পড়া শেষে লাশ হয়ে বাড়ী ফিরলে মা-বাবা ও স্বজনদের কান্নায় আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠে। স্থানীয়রা জানান, সিএনজি ও প্রাইভেট কারের প্রতিযোগিতায় এ ঘটনা ঘটছে। অপরদিকে গোলাপগঞ্জ-ঢাকাদক্ষিণ সড়কে দুইটি সিএনজি ও পিকআপ ভ্যানের সংঘর্ষে ৩জন আহত হয়েছেন। গোলাপগঞ্জ-ঢাকাদক্ষিণ সড়কের উপজেলা গেইটের সামনে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে দুটি সিএনজি অটোরিক্সা ও মিনি পিকআপের সংঘর্ঘের ঘটনা ঘটে। এতে অটোরিক্সা চালকসহ ৩জন গুরুতর আহত হন। আহতদের মধ্যে চালককে আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতলে প্রেররণ করা হয়েছে। খবর পেয়ে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে দুর্ঘটনায় কবলিত গাড়ি পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। বিকেলে গোলাপগঞ্জ-ঢাকাদক্ষিণ সড়কের উপজেলা পরিষদের গেইটে দু’টি সিএনজি অটোরিক্সা ও মিনি পিকআপের সংঘর্ষে সিএনজি অটোরিক্সা (সিলেট-থ-১২-১৭৯২) গাড়িটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে চালকসহ ৩জন গুরুতর আহত হন। এরমধ্যে সিএনজি অটোরিক্সা চালককে আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতলে প্রেরণ করা হয়েছে। আহতরা হলেন ঢাকাদক্ষিণ ইউনিয়নের অধিবাসী জিবান আহমদ (৩৫) ও পৌর দাড়িপাতন এলাকার শায়েন আহমদ (৩০)।