তামাবিল-বাইপাস সড়কে জেলা ছাত্রদলের অবরোধ

বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ডাকে অনির্দিষ্ট কালের অবরোধের দ্বিতীয় দিনে সিলেট জেলা ছাত্রদল সভাপতি সাঈদ আহমদের নেতৃত্বে গতকাল বুধবার সকাল ১১ টায় শাহপরান সুরমাগেইট এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল এবং তামাবিল সড়ক অবরোধ করেছে জেলা ছাত্রদল। মিছিলটি সুরমা গেইট পয়েন্টে পর্যন্ত এসে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের পর নেতাকর্মীরা রাস্তায় আগুন ধরিয়ে তামাবিল সড়ক অবরোধের চেষ্টা করলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ এবং বিজিবি এসে তাদেরকে ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। জেলা ছাত্রদল সভাপতি সাঈদ আহমদের সভাপতিত্বে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান পাপলু বলেন, যতই দমন, নিপীড়ন, নির্যাতন চালানো হউক না কেনো গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের সংগ্রামে চূড়ান্ত বিজয় না হওয়া পর্যন্ত ছাত্রদল ঘরে ফিরে যাবে না। ফ্যাসিবাদী কায়দায়  হত্যা, গুম, হামলা, মামলা করে গণ-আন্দোলনকে স্তিমিত করে রাখা যাবেনা, আপোসহীন নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং দেশনায়ক তারেক রহমানের নেতৃত্বে মুক্তিকামী জনতার বিজয় অবধারিত।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা ছাত্রদল সভাপতি সাঈদ আহমদ বলেন, ৫ জানুয়ারী দেশনায়ক তারেক রহমান তৃণমূল নেতাকর্মীদের রাজপথে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে পূর্ণাঙ্গ দিকনির্দেশনা দিয়ে যুক্তরাজ্য থেকে বক্তব্য রেখেছেন যা বাংলাদেশের বিভিন্ন ইলেকট্রনিক মিডিয়া সরাসরি সম্প্রচার করেছে। দেশনায়ক তারেক রহমানের নির্দেশনাই চূড়ান্ত নির্দেশনা, আর কোন নির্দেশনার প্রয়োজন নেই। অবরুদ্ধ দেশ ও দেশমাতাকে মুক্ত করে স্বৈরাচারী হাসিনার দখলদার সরকারকে গণ-অভ্যুত্থানের মাধ্যমে আস্তাকুড়ে নিক্ষেপ না করা পর্যন্ত ছাত্র-জনতার সংগ্রাম তীব্র থেকে তীব্রতর হবে।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র ছাত্রদল নেতা আনোয়ার হোসেন মানিক, আক্তার হোসেন, সাহেদ আহমদ, দেওয়ান রেজোয়ান, নজরুল ইসলাম, তোফায়েল আহমদ, আশরাফ উদ্দিন রুবেল, রায়হান উদ্দিন রাজু, খালেদ রাজা, ফেরদৌস আহমেদ সাকের, শাহিন আহমদ, হাসান আহমদ, আব্দুল্লাহ আল মামুন হীরা হিরা, ফরহাদ আহমদ, শেখ মোঃ নয়ন, কয়েছ আহমদ, ফাহিম আহমদ তোহা, জুমেল আহমদ, মুহিব আহমদ, মোফাজ্জ্বল হোসেন চৌধুরী মুর্শেদ, এম এ হাসান সাগর, জুম্মান আহমদ, মামুন আহমদ, শিমুল চৌধুরী, মিলাদ আহমদ, মোঃ মিন্টু, জাহিদ পিয়াস, আদনান আহমদ প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি