শ্রীমঙ্গলে যৌতুকের টাকা প্রদান না করায় স্ত্রীর উপর স্বামীর নির্মম নির্যাতন

মৌলভীবাজার থেকে সংবাদদাতা :
মৈৗলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে শহরতলীর রূপসপুর এলাকায় পাষন্ড স্বামীর লোহার রডের আঘাতে ছায়রা আক্তার লিজা নামে এক গৃহবধূ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন।
গত ১০ নভেম্বর সোমবার দুপুর ১২টার দিকে শ্রীমঙ্গল রূপসপুর এলাকার  ছালেক মিয়ার বাসায় এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানান, শ্রীমঙ্গল উপজেলার মিরজাপুর এলাকার মৃত ইসহাক মিয়ার ছেলে আব্দুল মান্নানের সাথে নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের মৃত আলকাছ মিয়ার কণ্যা ছায়রা আক্তার লিজার সাথে ২০০৯ সালের ২৫ ডিসেম্বর  ইসলামী শরিয়া মোতাবেক বিবাহ আবদ্ধ হন। বিয়ের পর থেকে শ্রীমঙ্গল শহরের রূপুসপুর এলাকায় ছালেক মিয়া বাসায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে আসছেন। বিয়ে পর থেকে ছায়রার সংসার সুখের  চলছিল। বিয়ের দুইবছর অতিবাহিত হতে না হতে ছায়রার স্বামী আব্দুল মান্নান ও দেবরসহ বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে যৌতুকের টাকার জন্য চাপ দেয়। এক পয়ার্য়ে তার স্বামী ছায়রার কাছে ৪ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করলে ছায়রা যৌতুকের টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাকে লোহার রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে। তার চিৎকারে আশ-পাশের লোকজনের সহায়তায় বসতঘর হইতে উদ্ধার করে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থা অবনতি হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে রেফার্ড করে।
মৌলভীবাজার হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে এখনও তার জ্ঞান ফিরেনি। বর্তমানে ছায়রা আক্তার হাসপাতালে মৃত্যুর সাতে পাঞ্জা লড়ছেন। ঘটনার খবর পেয়ে শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
শ্রীমঙ্গল থানার উপ-পরিদর্শক সৈয়দ মাহবুব মুঠোফোনে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত বলেন, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।