বিশ্বনাথে স্বামীর হাতুড়িপেটা খাওয়া সেই স্ত্রী মারা গেছেন

বিশ্বনাথ থেকে সংবাদদাতা :
বিশ্বনাথে পরকীয়ার অভিযোগে স্বামীর হাতুড়িপেটা খাওয়া সাফিয়া বেগম (৪২) নামের সেই স্ত্রী মারাগেছেন। শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সিলেট নগরীর আল রাইয়ান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তিন সন্তানের জননী নিহত সাফিয়া বেগম উপজেলার বৈদ্যকাপন গ্রামের সৌদী প্রবাসী আজম আলীর স্ত্রী। গতকাল শনিবার সকালে নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।
এর আগে শুক্রবার সকালে প্রবাসী আজম আলী পরকীয়ার অভিযোগে স্ত্রী সাফিয়া বেগমকে হাতুড়িপেটা দিয়ে গণধোলাইর হাত থেকে বাঁচতে পার্শ্ববর্তি সুড়ির খাল গ্রামের জামে মসজিদে গিয়ে আশ্রয় নেন। পরে জুম্মার নামাজ শেষে বৈদ্যকাপন ও সুড়িরখালের মুসল্লিরা আজম আলীকে পুলিশে সোপর্দ করেন।
আজম আলীর দাবী, দীর্ঘ ২৭ বছর পর গত ফেব্র“য়ারি মাসে তিনি দেশে ফিরেছেন। কিন্তু জুনেদ আহমদ নামের তার চাচাতো ভাইয়ের সঙ্গে তার স্ত্রীর পরকীয়া থাকায় তিনি তার স্ত্রীকে হাতুড়ি পেটা দিয়েছেন।
রিনা বেগম (৪০) নামের নিহতের ছোটবোন বাদি হয়ে বিশ্বনাথ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে জানিয়ে ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, স্বামী আজম আলী থানা হাজতে আটক রয়েছে।