সংসদ নির্বাচন নিয়ে বিএনপির মনোভাব জানতে চেয়েছেন কূটনীতিকরা

কাজিরবাজার ডেস্ক :
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে কিনা তা জানতে চেয়েছে ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকরা। মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) বিকালে গুলশানের চেয়ারপারসন কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে দলটির নেতারা কূটনীতিকদের ব্রিফ করেন। ওই বৈঠকে কয়েকজন কূটনীতিক জাতীয় নির্বাচনের বিষয়ে বিএনপির মনোভাব পরিষ্কার করার আহ্বান জানান। জবাবে নেতারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার আগে সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করার কথা বলেন। বৈঠকে অংশ নেওয়া বিএনপির কূটনৈতিক উইংয়ের একাধিক সদস্য এসব কথা জানান।
বৈঠকে কূটনীতিকদের বিএনপি নেতারা জানিয়েছেন, নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক পরিবেশ নিরাপদ করতে হবে। দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ নেতাকর্মীদের মুক্তি ও বর্তমান নির্বাচন কমিশনকে পুনর্গঠন করতে হবে। এই দাবিগুলো পূরণ হলেই নির্বাচনে যাবে বিএনপি।
মঙ্গলবার বিকালে গুলশানে অন্তত ২৫ টি দেশের বিভিন্ন পর্যায়ের কূটনৈতিক বিএনপির আমন্ত্রণে বৈঠকে অংশ নেন। এসময় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ব্রিফ করেন। এছাড়া বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটি ও ফরেইন উইংয়ের কয়েকজন সদস্য উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠকসূত্র জানায়, নিয়মিত ব্রিফের অংশ হিসেবেই কূটনীতিকদের সঙ্গে আজ মঙ্গলবার বৈঠক করে বিএনপি। গত ৩০ জুলাই রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের বিভিন্ন ফুটেজ দেখানো হয় বৈঠকে। এছাড়া নির্বাচনের সময় সহিংসতা, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর আটকসহ আরও কিছু বিষয়ের ওপর তৈরি বিশেষ ফাইলও হস্তান্তর করা হয় কূটনীতিকদের।
ফরেইন উইংয়ের গুরুত্বপূর্ণ একজন প্রবীণ সদস্য বলেন, ‘ফ্রান্স ও সুইডেনের দুজন কর্মকর্তা প্রশ্ন তোলেন আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে কী না। পরে মহাসচিব মির্জা ফখরুল তাদের জানান, যে সুষ্ঠু পরিবেশ ও দলীয় প্রধানের মুক্তি হলেই কেবল নির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি।’
একটি মামলায় পলাতক থাকায় বৈঠকে ফরেইন উইংয়ের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বৈঠকে অংশ নিতে পারেননি।
বৈঠকে অংশ নেওয়া একজন তরুণ নেতা জানান, কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠকে স্কুলের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কথাও ওঠে আসে। বিএনপির নেতারা বলেছেন, এই দাবিটি কেবল গণপরিবহন বা সড়কের নিরাপত্তা নিয়ে হলেও মূলত সরকারের বিরুদ্ধেই অবস্থান ছিল শিক্ষার্থীদের। শুধু শিক্ষার্থীরাই নয়, সাধারণ মানুষ এ সরকারের ওপর বিরক্ত বলেও জানানো হয় বৈঠকে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নওশাদ জমির বলেন, ‘কূটনীতিকদের সঙ্গে বিএনপির নিয়মিত কথা হয়। আজকের বৈঠকও তার অংশ। চলমান রাজনৈতিক অবস্থা, নির্বাচন, সিটি করপোরেশন নির্বাচনসহ নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।’
বিএনপির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. মঈন খান, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী, রিয়াজ রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল প্রমুখ। এছাড়া বৈঠকে কূটনীতিকদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, নরওয়ে, সুইজারল্যান্ডসহ ১৩টি দেশের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।