জাতীয় নির্বাচনে অনিয়ম হবে না এমন নিশ্চয়তা নাই – সিইসি

কাজিরবাজার ডেস্ক :
জাতীয় নির্বাচনে কোনো অনিয়ম হবে না, এমন নিশ্চয়তা দিতে পারেন না প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদা। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য সব ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।
রাজধানীতে নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট ভবনে প্রতিবন্ধী ভোটারদের নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা বিষয়ে কর্মশালা উদ্বোধন করে সাংবাদিকদের প্রশ্নে এসব কথা বলেন সিইসি।
গত ফেব্রুয়ারিতে দায়িত্ব নেয়া বর্তমান নির্বাচন কমিশন কুমিল্লা এবং রংপুরে বিতর্কমুক্ত নির্বাচন করতে পারলেও পরে পাঁচ সিটি নির্বাচন নিয়ে নানা বিতর্ক হয়েছে। বিএনপি অভিযোগ করেছে, প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশন মিলে ভোটে কারচুপি করেছে।
বর্তমান কমিশনের অধীনে ভোট সুষ্ঠু হবে না দাবি করে কমিশনের পদত্যাগও চেয়েছে বিএনপি। দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দলের এই অবস্থানে অস্বস্তিতে আছেন কি না-এমন প্রশ্নে সিইসি বলেন, ‘না, আমরা অস্বস্তিতে নেই। আমরা মনে করি না যে, জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এরকম অসুবিধা হবে। তবে অতো বড় বড় পাবলিক নির্বাচনে কোথাও কোথাও অনিয়ম হবে না এই নিশ্চয়তা দেওয়ার সুযোগ আমার নাই।’
‘হবে হয়তো, ওগুলো আমরা নিয়ন্ত্রণ করব, যেভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হয় এবং ব্যবস্থা নেয়া হবে তার বিরুদ্ধে যদি অনিয়ম হয়।’
গত পাঁচ সিটি নির্বাচনের চিত্র নিয়ে বিএনপির আপত্তির বিষয়ে প্রশ্নে সিইসি বলেন, ‘খুব বেশি সুখকর ছিল না এটা আমি মানতেই রাজি না। কোথাও কোথাও অনিয়ম হয়েছে। এই জাতীয় পাবলিক ইলেকশনে এ রকম অনিয়ম কিছু কিছু হয়েই থাকে। যেখানে বেশি অনিয়ম হয়েছে, আমরা সেখানে বেশি অ্যাকশন নিয়েছি। যেমন বরিশালে বেশি অনিয়ম হয়েছে, সেখানে আমরা বেশি অ্যাকশন নিয়েছি।’
ড. কামাল হোসেন এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, জাতি ইসির উপর আস্থা রাখতে পারছে না। এ বিষয়ে আপনি কিছু বলবেন? সিইসি দৃষ্টি আকর্ষণ করলে সিইসি বলেন, ‘ড. কামালৈ কীভাবে দেখেন তাতো আমি জানি না। জাতির কি পরিসংখ্যান তার কাছে আছে তাতো আমি জানি না। একটা কথা বলতে হলে পরিসংখ্যান নিতে হবে জাতি বলেছে কি না ভোট দিয়ে বা কোনোভাবে তাকে বলেছে কি না যে, আমরা জাতি আস্থা রাখি না। এ রমক কথা আমি শুনিনি।’
সিইসি জানান, অক্টোবরে সংসদ নির্বাচনের তফসির ঘোষণা হবে এবং ডিসেম্বরে বা জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে হবে ভোটগ্রহণ।
ডিসেম্বরে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য এই মুহূর্তে নির্বাচনী পরিবেশ আছে কি না জানতে চাইলে সিইসি বলেন, ‘আমি মনে করি আছে। নির্বাচনি পরিবেশ আছে, অসুবিধা কোথায়? আমিতো অসুবিধা দেখি না। সাংবিধানিক ধারা অনুসারে নির্বাচন হবে।’
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে নির্বাচনের পরিবেশ বিঘ্নিত হতে পারে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এই আন্দোলনের সাথে নির্বাচনের কী সম্পর্ক? এটা ভিন্ন ইস্যু। নির্বাচন নিয়েতো তারা কোনো কথা বলেনি।’
এই ইস্যু সম্পর্কে কনসার্ন আছেন কি না জানতে চাইলে সিইসি বলেন, ‘এখানে আমাদের কনসার্নের কিছু নেই। এটা সরকার দেখবে।’
জাতীয় নির্বাচনের জন্য কী কী কাজ করছেন জানতে চাইলে সিইসি বলেন, ‘অনেক কাজ করছি। যেমন: ভোটার তালিকা হয়ে গেছে, প্রশিক্ষণ ম্যানুয়াল হয়েছে, সীমানা পুনঃনির্ধারণ হয়েছে, ভোটকেন্দ্র নির্ধারণের কাজ চলছে এই কাজগুলো তো অনবরত চলছে।’