৩৬তম বিসিএসে নিয়োগ পেলেন ২২০২ জন

কাজিরবাজার ডেস্ক :
৩৬তম বিসিএস পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) সুপারিশের আলোকে দুই হাজার ২০২ জন প্রার্থীকে সিভিল সার্ভিসের বিভিন্ন ক্যাডারের প্রবেশ পদে নিয়োগ দিয়েছে সরকার।
মঙ্গলবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।
গত বছরের ১৭ অক্টোবর দুই হাজার ৩২৩ জনকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করে পিএসসি। কিন্তু প্রকাশিত প্রজ্ঞাপনে দেখা যাচ্ছে দুই হাজার ২০২ জন প্রার্থীকে নিয়োগের সুপারিশ করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ফলে এতে ১২১জন প্রার্থী চূড়ান্ত নিয়োগ থেকে বাদ পড়েছেন।
৩৬তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয় ২০১৫ সালের ৩১ মে। দুই লাখের বেশি পরীক্ষার্থী এতে অংশ নেন। পরের বছরের সেপ্টেম্বরে লিখিত পরীক্ষা হয়। মৌখিক পরীক্ষা শেষ হয় ২০১৭ সালের জুনে।
এদিকে ৩৯তম বিসিএস (বিশেষ) পরীক্ষায় আবেদনকারী ১৩৯ জনের প্রার্থিতা বাতিল করেছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)।
মঙ্গলবার পিএসসির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ক্যাডার) আ. ই. ম. নেছার উদ্দিন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তাদের প্রার্থিতা বাতিল করা হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের ২০ মে’র পত্রের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিএসসি ইন হেলথ/মেডিকেল টেকনোলজি (ডেন্টাল) ডিগ্রি বিডিএস ডিগ্রির সমমানের নয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৩৯তম বিসিএস (বিশেষ) পরীক্ষাতে বিএসসি ইন হেলথ/মেডিকেল টেকনোলজি (ডেন্টাল) ডিগ্রিধারী আবেদনকারীরা সহকারী ডেন্টাল সার্জন পদের জন্য যোগ্য নন। বিএমডিসি’র উক্ত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিএসসি ইন হেলথ/মেডিকেল টেকনোলজি (ডেন্টাল) ডিগ্রিধারীদের আবেদন ৩৯তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তির শর্ত অনুযায়ী বাতিল করা হলো।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিএমডিসি’র সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রার্থিতা বাতিলকৃত রেজিস্ট্রেশন নম্বরধারীদের আগামী ৩ আগস্ট অনুষ্ঠেয় ৩৯তম বিসিএসের লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। প্রার্থিতা বাতিলকৃত রেজিস্ট্রেশন নম্বরধারীদের পরীক্ষা হলে না আসার অনুরোধ করেছে পিএসসি।