জকিগঞ্জের আব্দুস সালাম গড়ই নিখোঁজের ২৭ বছর পর বাড়ী ফিরেছেন, স্বজনরা আনন্দে উদ্বেলিত

জকিগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা :
প্রায় ২৭ বছর আগে নিখোঁজ হয়েছিলেন জকিগঞ্জের খলাছড়া ইউনিয়নের মাদারখাল গ্রামের আব্দুস সালাম গড়ই মিয়া। ছেলের সন্ধান পেতে বৃদ্ধ মা ৫ বিঘা জমি বিক্রি করে দেশের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে বেড়িয়েছেন। সন্ধান পাননি নিজ সন্তানের। ছেলে হারানোর বেদনা নিয়ে মারা যান মা। আত্মীয়-স্বজনের ধারণা ছিলো হয়তো কেউ গড়ই মিয়াকে মেরে ফেলেছে বা কোন দুর্ঘটনায় তিনি মারা গেছেন। কিন্তু শুক্রবার সকালের দিকে সেই আব্দুস সালাম গড়ই মিয়া (৬৫) নিজ বাড়ীতে ফিরেছেন। তার ফিরে আসার খবরে আনন্দে উদ্বেলিত স্ত্রী, সন্তান ও আত্মীয় স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েছেন। এলাকার লোকজন এক পলক তাকে দেখতে বাড়ীতে এসে ভীড় করছেন। এলাকার কাউকেই গড়ই মিয়া চিনতে পারছেন না।
খলাছড়া ইউপি সদস্য লিটন আহমদ এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বাড়ীতে ফিরে আব্দুস সালাম গড়ই মিয়া বলেছেন, তিনি শরিয়তপুর জেলার পদ্মা সেতু সংলগ্ন দক্ষিণ তীর এলাকায় ছিলেন। সেখানে সবজি বিক্রি ও কাজ কর্ম করে এতদিন কাটিয়েছেন। মাঝেমধ্যে তাবলীগ জামাতেও করে সময় পার করতেন। নিজ ইচ্ছায় তিনি নিখোঁজ হয়েছিলেন। ইউপি সদস্য আরও জানান, গড়ই মিয়ার স্ত্রী, ২ ছেলে, ৩ মেয়ে রয়েছেন। বাড়ীতে ফিরে তিনি বড় মেয়ে ছাড়া অন্য কাউকে চিনতে পারেননি। গড়াই মিয়া নিখোঁজের পর মা ৫ বিঘা জমি বিক্রি করেও ছেলে সন্ধান না পেয়ে সন্তান হারানোর যন্ত্রণা নিয়ে মৃত্যু বরণ করেছেন। অথচ আজ হারানো ছেলে বাড়িতে ফিরলো কিন্তু দেখলেন না তার মা।