হার্নান্দেজ, ভেলায় জয়ের বন্দরে মেক্সিকো

ক্রীড়াঙ্গন রিপোর্ট :
কার্লোস ভেলা ও হাভিয়ের হার্নান্দেজের গোলে রাশিয়া বিশ্বকাপে ‘এফ’ গ্র“পে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে দ কোরিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়েছে মেক্সিকো। এই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে এই গ্র“পে টেবিলের শীর্ষে থেকে টুর্নামেন্টের শেষ ষোল’র পথ সুগম করলো মেক্সিকানরা।
বিশ্বকাপের প্রথম জয়টি তারা তুলে নিয়েছিলো ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন জার্মানির বিপক্ষে।
পক্ষান্তরে টানা দুই হারে পয়েন্টশূণ্য থেকে বিশ্বকাপ থেকে নিজেদের বিদায়ঘণ্টা বাজালো কোরিয়া। গ্র“পের অপর দুই দলের প্রথমটি জার্মানি এখনও কোন পয়েন্ট পায়নি। যদিও তাদের গ্র“প পর্বে দুটি ম্যাচ হাতে আছে। আর দ্বিতীয় স্থানে থাকা সুইডেনের পয়েন্ট ৩।
অথচ শনিবারের এই ম্যাচের শুরুটা মেক্সিকোর তুলনায় বেশ গোছালোই করেছিলো কোরিয়া। লম্বা পাস, মাঝমাঠের দখল এমনকি আক্রমণভাগেও দলটির আধিপত্য ছিল দেখার মতো।
কিন্তু ম্যাচের ২৭ মিনিটে অঘটন ঘটিয়ে বসে এশিয়ার দাপুটে এই দলটি। ম্যাচের ২৬ মিনিটে কার্লোস ভেলার করা পেনাল্টি গোলে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেলো মেক্সিকো। আন্দ্রেস গুয়ারদাদোর পাস ঠেকাতে গিয়ে নিজেদের ডি বক্সে হাতে বল লাগে দক্ষিণ কোরিয়ান ডিফেন্ডার জাং হিউনসুর। হ্যান্ডবল ঘোষণা দেওয়ার পর পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। পেনাল্টি থেকে গোল করেন কার্লোস ভেলা।
২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপে এটি ১৪তম পেনাল্টি গোল। ২০১৪ সালের ব্রাজিল বিশ্বকাপে পুরো আসরে পেনাল্টি থেকে গোল হয়েছিলো ১৩টি। আর এবার অর্ধেকটা পার হওয়ার আগেই ১৪ গোল!
সেই লিডেই প্রথমার্ধের খেলা শেষ করে হার্নান্দেজরা।
ম্যাচের ৬৬ মিনিটে ফরোয়ার্ড হ্যাভিয়ের হার্নান্দেজ তথা চিচারিতোর গোলে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় মেক্সিকো।
গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জার্মানির বিপক্ষে গোলের পুনরাবৃত্তি ঘটিয়েছে মেক্সিকো। যদিও এবার গোলস্কোরারের স্থানে নাম আলাদা।
লোজানোর পাস থেকে পাওয়া বল ডান পায়ের দারুণ দক্ষতায় দখলে নিয়ে জালে জড়িয়ে দেন চিচারিতো। বিশ্বকাপে এটি তার চতুর্থ গোল। এই গোলে মেক্সিকোর হয়ে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডে লুইস হার্নান্দেজের পাশে নাম লেখালেন হ্যাভিয়ের হার্নান্দেজ।
ধারণা করা হচ্ছিলো দ্বিতীয়ার্ধে ঠিক জাল খুজে পাবে কোরিয়া। ইনজুরি টাইমে ডি
বক্সের অনেক বাইরে থেকে সনের দুরপাল্লার শটে পেয়েছে সত্যি কিন্তু ততক্ষণে দেরি হয়ে গেছে।
কেননা ৬৬ মিনিটে হাভিয়ের হার্নান্দেজের গোলে তখন ২-০ তে এগিয়ে রেফারির শেষ বাশির অপেক্ষায় মেক্সিকানরা।
তাদের অপেক্ষার সেই ক্ষণ ফুরোতে কালবিলম্ব হলো না। সনের গোলের ১ মিনিট না যেতেই শেষ বাঁশি বাজিয়ে খেলার সমাপ্তি ঘোষণা করলেন রেফারি।