মরক্কোকে বিদায় করে নকআউট পর্বের পথে পর্তুগাল

স্পোর্টস ডেস্ক :
স্পেনের বিপক্ষে ড্র করার পর মরক্কোকে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডের পথে এগিয়ে গেল পর্তুগাল। রাশিয়া বিশ্বকাপের গ্র“প পর্বের ম্যাচে গতকাল মরক্কোকে ১-০ গোলে হারিয়েছে পর্তুগীজরা। পর্তুগাল গ্র“প পর্বে তাদের বাকি ম্যাচটি খেলবে ইরানের বিপক্ষে। এই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে ২৫ জুন। এর আগে স্পেনের বিপক্ষে ৩-৩ গোলে ড্র করেছিল পর্তুগাল। ওই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।
অন্যদিকে, দুই ম্যাচ খেলে দুইটিতেই হারল মরক্কো। গতকালের হারের মাধ্যমে তাদের বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেল। মরক্কো প্রথম দল হিসাবে এবারের বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিলো। এর আগে ইরানের বিপক্ষে তারা ১-০ গোলে হেরেছিল। আগামী ২৫ জুন মরক্কো তাদের গ্র“প পর্বের শেষ ম্যাচে স্পেনের মুখোমুখি হবে।
মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হতে না হতেই মরক্কোর জালে বল জড়ায় পর্তুগাল। গোলটি করলেন পর্তুগীজ অধিনায়ক ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। কর্নার কিক পেয়ে সুযোগটি কাজে লাগায় পর্তুগাল। ডি-বক্সের জটলার মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকা রোনালদো লো হেডে বল পাঠিয়ে দেন জালে।
ম্যাচের প্রথমার্ধে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় পর্তুগাল। শুরুতেই পিছিয়ে যাওয়ার পর ম্যাচের বাকি সময়ে মরক্কো বেশ কয়েকবার আক্রমণে গিয়েছে। কিন্তু কাক্সিক্ষত গোলের দেখা পায়নি। যার কারণে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে পর্তুগাল। ম্যাচে বল দখলের পরিসংখ্যানে অবশ্য এগিয়ে মরক্কো। ৪৩ শতাংশ সময় ধরে বল দখলে রেখেছিল পর্তুগাল। আর ৫৭ শতাংশ সময় ধরে বল দখলে রেখেছিল মরক্কো।
গতকালের গোলের মাধ্যমে পর্তুগালের দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসাবে এক বিশ্বকাপে কমপক্ষে চারটি গোল করার কৃতিত্ব গড়েছেন রোনালদো। এর আগে ১৯৬৬ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে পর্তুগালের ইউসেবিও নয়টি গোল করেছিলেন। তাছাড়া রোনালদোই এখন ইউরোপের সর্বকালের সেরা গোলদাতা ফুটবলার। এটি তার ৮৫তম আন্তর্জাতিক গোল।
এর আগে ৮৪ গোল করে এই রেকর্ডের মালিক ছিলেন হাঙ্গেরি ও স্পেনের ফেরেন্স পুসকাস। ৮৯ ম্যাচে ৮৪টি গোল করেন তিনি। আর ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো তার ১৫২তম ম্যাচে ৮৫তম গোলটি করলেন। এই তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে আছেন হাঙ্গেরির সান্দোর ৬৮ ম্যাচে ৭৫টি গোল করেন তিনি।
এই গোলের মাধ্যমে রোনালদো আরো একটি কীর্তি অর্জন করেছেন। সেটি হলো বিশ্বকাপের ইতিহাসে অধিনায়ক হিসাবে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড ছিল আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার। তিনি অধিনায়ক হিসাবে ছয়টি গোল করেছিলেন। আর দিয়েগো ম্যারাডোনার সেই রেকর্ডে ভাগ বসালেন রোনালদো। বিশ্বকাপে অধিনায়ক হিসাবে রোনালদোর গতকাল তার ষষ্ঠ গোলটি করলেন।
এবার স্পেনের বিপক্ষে ম্যাচের মাধ্যমে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেছে পর্তুগাল। ওই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছিলেন রোনালদো। রাশিয়া বিশ্বকাপে রোনালদোর গোলটি চতুর্থ। আর রাশিয়া বিশ্বকাপে পর্তুগালের গোলটি দ্রুততম। কলম্বিয়ার বিপক্ষে ছয় মিনিটে গোল করেছিল জাপান।
২০১৬ সালে ইউরো কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পর্তুগাল। ৩৩ বছর বয়সী ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর এটিই হতে পারে শেষ বিশ্বকাপ। তাই পর্তুগালও চাইবে বিশ্বকাপে ভালো কিছু করতে। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো এবার চতুর্থবারের মতো বিশ্বকাপে অংশ নিচ্ছেন। এর আগে ২০০৬, ২০১০ ও ২০১৪ মিলিয়ে রোনালদো তিনটি গোল করেছিলেন। আর এবার প্রথম দুই ম্যাচেই করলেন চারটি গোল।