চিরকুমারনামা

আবরার ফাহিম

ভর দুপুরে, ডাকিছে কুকুরে, বাজিয়া উঠিল ফোন
ধরিয়া দেখি, জিএফ আমার, রাগিয়া হইলেন খুন।
জিজ্ঞেসিনু তারে, হয়েছে কি, রাগের কিবা হেতু?
তিনি বলিলেন, নিকুচি প্রেমের, তোর মুখে দেই থুথু।

এতটাকার প্রেম, এমনি করিয়া, ভাসিয়া যাইবে জলে?
চারটা বছর, নিয়েছিনু দম, ধারালো ছুরির তলে।

ফের জিজ্ঞেসিনু, “খুলিয়া বল, হয়েছে কি সমস্যা?”

জবাব আসিল, “জীবনটারে কি তুই ভাবিতেছস কেচ্ছা?
টাকা নাই তাও, কেন নিতি, বড়লোকের মত করে পার্ট?
আমি ভাবিলাম, ধনী অনেক, আর তাই করেছিলাম ফ্লার্ট।
চেহারা স্টাইল আর ভাবখানায় তুই, যেন এলন মাস্ক
এখন দেখি তুইযে ফকির, যেন ভাঙ্গা চায়ের-ফ্লাক্স।

রাজার বংশে, বিয়ের জন্য, হেঁটেছিলেন আব্বাজান
তর জন্য, সপিয়াছিলাম, দেহ মন আর পরাণ।
ফকির মিসকিন, দয়া করা যায়, প্রেম কি হয় এতে
বিরিয়ানী খাইয়া, পেট ফুলাইব, থাকিবনা পেটে ভাতে।

আমি কহিলাম, দেখ আমি হইতেছি ইঞ্জিনিয়ার
লাইফের চাকা ঘুরায়ে দিব, উইথ ফিফথ গিয়ার
কয়েক দশক পার হইলেই আর, হইব গ্রেজুয়েট
টাকা তখন চিবাইয়া খাইতে, টাকায় ভরিতে পেট
কিন্তু আজিকে দূর হইল, সব কনফিউশন আমার
লোভী তোমায় ছাড়িয়া হইব, শখের চিরকুমার।