শহরতলীর কান্দিগাঁওয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে যুবক নিহত, আহত ৬

স্টাফ রিপোর্টার :
শহরতলীর কান্দিরগাঁওয়ে বাঘারপার গ্রামে দু’পক্ষের সংঘর্ষে এক যুবক নিহত ও অন্তত: ৬ জন আহত হয়েছেন। গতকাল শনিবার তারাবির নামাজের সময় বাঘারপার গ্রামে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। নিহত যুবকের নাম- আব্দুল আহাদ ফকির (৩৫)। তিনি জালালাবাদ থানার বাঘারপার গ্রামের শমসের আলীর পুত্র।
আহতরা হচ্ছে- একই গ্রামের ইন্তাজ আলীর পুত্র দেলওয়ার হোসেন (১৮), সুন্দর আলীর পুত্র আব্বাস আলী (৪৫), জুয়েল (২৫), একরাম হোসেন (২২), নুরুল ইসলাম (১৮) ও রাছনা বেগম (৩০)। এর মধ্যে আব্বাস আলীর অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, কান্দিরগাঁওয়ের বাঘারপার গ্রামের মৃত জাফর আলীর স্ত্রী সালিতুন বিবি ও ইছাক আলীর পুত্র মকলিছ মিয়ার পরিবারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। শনিবার তারাবির নামাজের পর শালিস বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল। বিরোধ নিষ্পত্তির লক্ষ্যেই সেখানে জড়ো হয়েছিলেন উভয় পক্ষ। এক পর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয় যা পরবর্তীতে সংঘর্ষে রুপ নেয়। এসময় সালিশীপক্ষের আব্দুল আহাদ ফকির তাদের দু’পক্ষের মার থামাতে গিয়ে তিনি ঘটনাস্থলে নিহত হন এবং সংঘর্ষে উভয়পক্ষের মহিলাসহ ৬ জন গুরুতর আহত হন। স্থানীয় লোকজন আহতদের ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম কাছে সংঘর্ষের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানিয়েছেন, নিহত যুবকের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ওসমানী হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছে বলে জানান তিনি। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।