নিখোঁজ কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলীর বাসায় পুলিশের তল্লাসী, জেলা বিএনপির নিন্দা

নিখোঁজ বিএনপির কেন্দ্রীয় সংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য এম. ইলিয়াস আলী বনানীর বাসায় ভোর রাতে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তল্লাসীর চেষ্টা এবং তার স্ত্রী সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা তাহসিনা রূশদী লুনাকে হয়রানীর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন সিলেট জেলা বিএনপি।
মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম ও সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, আমাদের প্রাণের নেতা এম. ইলিয়াস আলীকে বর্তমান বাকশালী সরকার তাদের গুম নামক কারাগারে বন্দি করে রেখেছে তারপরও তারা তাদের হীন ও অসৎ উদ্দেশ্যে রাতের আধারে ইলিয়াস আলীর পরিবারকে হয়রানী করার জন্যই বাসাটি ঘেরা করে। কিন্তু মিডিয়াকর্মীরা পৌঁছে যাওয়ার কারনে তারা ব্যর্থ হয়ে চলে যায়। সিলেট জেলা বিএনপি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। ভবিষ্যতে এরকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলে পরিণতি ভালো হবে না বলে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের গুম নামক কারাগারে আটক বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি সফল সংসদ সদস্য জননেতা এম ইলিয়াস আলীকে অক্ষত ও সুস্থ অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়ার দাবী জানান।
এদিকে নিখোঁজ বিএনপির নেতা ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা ও তাদের ছেলে-মেয়েদের সঙ্গে দেখা করেছেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা।
মঙ্গলবার (২১ মে) সন্ধ্যায় রাজধানীর বনানীর সিলেট হাউসের বাসায় গিয়ে তারা দেখা করেন। নেতাদের মধ্যে রয়েছেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদদ্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, নির্বাহী সদস্য রফিক হেলালী, সাবেক এমপি শাম্মী আখতার ও সুনামগঞ্জ জেলার নেতা নরুল ইসলাম সাজু।
এ বিষয়ে বিএনপির মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, দলের নেতারা ইলিয়াস আলীর পরিবারের খোঁজখবর নিয়েছেন এবং তাদের পাশে থাকার কথা দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন, এ সময় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম টেলিফোনে তাদের খোঁজ নেন।
এদিকে, সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেন, মঙ্গলবার সেহরির আগে ইলিয়াস আলীর বাসায় তল্লাশির নামে ডিবি পরিচয়ে পুলিশ গিয়েছে। দরজা খোলার জন্য তারা ধাক্কাধাক্কি করেছে। এতে অসুস্থ তাহসিনা রুশদী আতঙ্কিত হয়ে দলের নেতাদের ফোনে বিষয়টি জানান। পরে গণমাধ্যমের উপস্থিতিতে ইলিয়াস আলীর বাসার বাইরে অবস্থান নেওয়া ডিবি পুলিশ পরিচয়ধারী ব্যক্তিরা চলে যায়। বিজ্ঞপ্তি