শিক্ষার উন্নয়নে বর্তমান সরকার আন্তরিক -এমপি মানিক

দোয়ারাবাজার থেকে সংবাদদাতা :
ছাতক-দোয়ারাবাজার আসনের এমপি মুহিবুর রহমান মানিক বলেছেন, জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস কে কাজে লাগিয়ে ছাতক-দোয়ারাবাজার অঞ্চলের মানুষ আমাকে বার নির্বাচিত করেছেন। সকল ষড়যন্ত্র বাধা বিপত্তির পথ অতিক্রম করে আজো জনগণের পাশে আছি। জনগণের ভালবাসার কারণেই জননেত্রী শেখ হাসিনা বার বার আমাকে নৌকা প্রতীকে মনোনীত করেছেন। আমি ৯৬ সালে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর সড়ক যোগাযোগ ও শিক্ষার উন্নয়নে নিজেকে নিবেদিত রেখেছি। ইতোমধ্যে দুই উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় ১৭টি কলেজ ও ৬৬টি উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। শিক্ষার উন্নয়নে আ’লীগ সরকার সবসময় আন্তরিক ছিল। তাই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আবারো নৌকা প্রতিকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করুন। রবিবার বিকালে দোয়ারাবাজার উপজেলার হাজী নুরুল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট চানমিয়ার সভাপতিত্বে ও শিক্ষক একরামুল হোসেন সোহল মিয়ার পরিচালনায় নবনির্মিত কাজী রেজিয়া ভবনের উদ্বোধন শেষে অনুষ্ঠিত এক সংবর্ধনা অতিথি হিসেবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ইদ্রিস আলী বীরপ্রতিক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও যুক্তরাজ্য আ’লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এসএম সুজন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ছাতক উপজেলা আ’লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আহমদ, দোহালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান কাজী আনোয়ার মিয়া আনু, ছাতক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবু শাহাদাত মো. লাহিন, ছাতক ডিগ্রী কলেজের সাবেক ভিপি শফিকুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট আকমল খান, আবুল ফজল, অ্যাডভোকেট তমাল চন্দ্র নাথ, উপজেলা কৃষকলীগের আহবায়ক শহিদুল ইসলাম, উপজেলা যুব মহিলা লীগের আহবায়ক সামছুন নাহার খানম, উপজেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব অসিত তালুকদার, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম প্রমুখ। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহিদ, ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি নুর মিয়া, সাধারণ সম্পাদক বশির আহমদ, মান্নারগাঁও ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ভূপতি দাস, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি তাজির উদ্দিন মেম্বার, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা সাহাব উদ্দিন তাং, মান্নারগাঁও ইউনিয়ন আ’লীগ নেতা আনোয়ার মিয়া প্রমুখ। পরে বিদ্যালয় মাঠে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।