আমি হাওরের সন্তান, হাওরের উন্নয়নে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে যাচ্ছি – অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা :
অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি বলেছেন, আমি হাওরের সন্তান, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমি এ নামেই পরিচয়। তিনি আমাকে দেখলেই বলেন, হাওরের কি অবস্থা, হাওরের জন্য আরো বেশী করে প্রকল্প নিয়ে আসেন। আমি হাওরের উন্নয়নের জন্য আরো টাকা দেবো।
তিনি বলেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই হাওর অঞ্চলের জনগোষ্ঠীর জীবন মান উন্নয়নের সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে আসছি। আর তাই সুনামগঞ্জে মেডিকেল কলেজ, বিশ^ বিদ্যালয়, টেকনিক্যাল কলেজ, টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট সহ নতুন নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। এ জন্য হাওরবাসীর পক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে অসংখ্যা ধন্যবাদ।
মন্ত্রী বলেন, আমি চোখ বন্ধ করেলেই দেখতে পাই আগামী ১৫-১৬ বছর পরে বাংলাদেশে কি পরিমান পরিবর্তন হবে যা এখনকার ছেলে-মেয়েরা এই সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করবে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকার সেই কাজ গুলোই করে যাচ্ছে।
মন্ত্রী আরোও বলেন, আমার নিজের এলাকা দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ৮-৯ বছর আগে কি ছিলো? উপজেলা প্রশাসনিক ভবন, থানা বভন, ফায়র সার্ভিস, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কিছুই ছিল না। এখন ৮-৯ বছরে আওয়ামী লীগ এ উপজেলায় সব করে দিয়েছে। এভাবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আওয়ামী লীগ উন্নয়ন করে যাচ্ছে শুধুমাত্র দেশের জনগণনের জীবন মান উন্নয়নের জন্য।
তিনি বলেন, এমন পরির্বতন আসবে যে খানে লাইনের বিদ্যুৎ লাগবে না, বিল দিতে হবে না। যাতায়াতের জন্য গাড়ি লাগবে না। সবাই আকাশে উড়বে। ছোট-ছোট হ্যালিকাপ্টার প্রায় গ্রামেই ২-১টা থাকবে। দেশে এখন দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। আর উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটের মাধ্যমে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনতে হবে।
শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার দেখার হাওরে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বাস্তবায়িত হাওর রক্ষা বাঁধ পরিদর্শন শেষে আস্তমা গ্রামবাসীর আয়োজনে জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন।
সভায় আস্তমা গ্রামের প্রবীণ মুরব্বী হাজী তারা মিয়ার সভাপতিত্বে, উপজেলা যুবলীগ নেতা হাসান মাহমুদ তারেকের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. হারুন অর রশীদ, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি হাজী তহুর আলী, সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আতাউর রহমান, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অ্যাড. বোরহান উদ্দিন দোলন, সিনিয়র সহ সভাপতি প্রভাষক নুর হোসেন, শিমুলবাক ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জিতু, দরগাপাশা ইউপি চেয়ারম্যান মনির উদ্দিন, জয়কলস ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ মিয়া, জেলা পরিষদের সদস্য জহিরুল ইসলাম, পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ সহকারি প্রকৌশলী ফারুক আল মামুন।
এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আস্তমা গ্রামের প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মজর আলী, আব্দুল খালিক, পিআইসির সদস্য বাহাদুর মিয়া, আঙ্গুর মিয়া, লায়েক মিয়া, জিল্লুর রহমান সহ প্রমূখ।
অপরদিকে দুপুর সাড়ে ১২টায় উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের আওতাধীন দেখার হাওরে পানি উন্নয়ন বোর্ঢ কর্তৃক ৪টি হাওর রক্ষা বাঁধ পরির্দশন করে ইউনিয়নের কাদিপুর গ্রামবাসীর উদ্যোগে পশ্চিম পাগলা ইউপি চেয়ারম্যান মো. নুরুল হক’র সভাপতিত্বে, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন তালুকদারের পরিচালনায় জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি।