জগন্নাথপুর-রাণীগঞ্জ সড়কে কাজ শুরু, জনমনে স্বস্তি

জগন্নাথপুর থেকে সংবাদদাতা :
অনেক আন্দোলন-সংগ্রাম ও জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে সুনামগঞ্জ-ঢাকা আঞ্চলিক মহা সড়কের জগন্নাথপুর-রাণীগঞ্জ সড়কে মেরামত কাজ শুরু হয়েছে। সড়কটির বেহাল দশার কারণে দীর্ঘদিন ধরে অত্র অঞ্চলের মানুষকে অবর্ণনীয় ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছে। অবশেষে সড়কে কাজ শুরু হওয়ায় জনমনে স্বস্তি ফিরে এসেছে।
জানা গেছে, দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে সুনামগঞ্জ-ঢাকা আঞ্চলিক মহা সড়কের জগন্নাথপুর পৌর সদর থেকে আউশকান্দি পর্যন্ত সড়কের অবস্থা বেহাল দশায় পরিণত হয়। সড়কের নাজুক অবস্থার কারণে জন ভোগান্তি চরমে পৌছে। প্রতিনিয়ত এ সড়কে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কোন রকমে যানবাহন চলাচল করছে। সড়কে মেরামত কাজ শুরুর দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন-সংগ্রাম করছেন ভূক্তভোগী জনতা। সড়টি সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীনে হওয়ায় জগন্নাথপুর পৌরসভা এলাকায় পৌর কর্তৃপক্ষ কাজ করতে পারছে না। জগন্নাথপুর পৌরসভা অংশের সড়কের মালিকানা নিয়ে সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং জগন্নাথপুর পৌরসভার মধ্যে রশি টানাটানি করে কাজ না হওয়ায় জনমনে ক্ষোভ ও উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।
এর মধ্যে সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীনে সুনামগঞ্জ-ঢাকা মহা সড়কের জগন্নাথপুর-রাণীগঞ্জ সড়কের হবিবনগর থেকে ইছগাঁও পর্যন্ত ২ কিলোমিটার সড়কের কাজ পায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আতাউর রহমান খান (এআরকে) গ্র“প।
অবশেষে ১৩ ফেব্র“য়ারি মঙ্গলবার জগন্নাথপুর-রাণীগঞ্জ সড়কে মেরামত কাজ শুরু হয়। প্রায় ৪৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে কাজের উদ্বোধন করেন এআরকে গ্র“পের ঠিকাদার গোলাম কবির আহমদ চৌধুরী। এ সময় প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার রুবেল আহমদ ও সাইড ইঞ্জিনিয়ার বশির উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।
এ ব্যাপারে ঠিকাদার গোলাম কবির আহমদ চৌধুরী বলেন, আগামি এক মাসের মধ্যে কাজ শেষ হয়ে যাবে। এছাড়া সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে জগন্নাথপুর পৌর ভবনের কাজ করছেন ঠিকাদার গোলাম কবির আহমদ চৌধুরী। দ্রুত চলছে কাজ। আগামি ২০১৯ সালের মধ্যে কাজ শেষ হবে বলে ঠিকাদার গোলাম কবির আহমদ চৌধুরী জানান। সেই সাথে পৌর ভবনে মান সম্মত ও দ্রুত কাজ করে স্থানীয় জনগণের প্রশংসা কুড়িয়েছে ঠিাকাদারী প্রতিষ্ঠান এআরকে গ্র“প।