জগন্নাথপুরে ইভটিজারের হামলায় ছাত্রীসহ একই পরিবারের ৪ জন আহত

জগন্নাথপুর থেকে সংবাদদাতা :
জগন্নাথপুরে ইভটিজারের হামলায় স্কুলছাত্রী সহ একই পরিবারের ৪ জন আহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে জগন্নাথপুর উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের উত্তর কালনীরচর গ্রামে। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
জানা গেছে, উত্তর কালনীরচর গ্রামের নিরীহ সবজি ব্যবসায়ী আবদুর রহিমের কন্যা স্থানীয় রহমতপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রণির ছাত্রী সারজানা বেগমকে স্কুলে যাতায়াতের পথে দীর্ঘদিন ধরে নানা ভাবে উত্যক্ত করে আসছে ডালিম নামের এক বখাটে। সে নবীগঞ্জ উপজেলার বাউশা গ্রামের আবদুল আজিজের ছেলে। সে দীর্ঘদিন ধরে কালনীরচর গ্রামে তার দুলাভাই বিএনপি নেতা মেন্দি মিয়ার বাড়িতে বসবাস করছে।
এদিকে-ইভটিজিংয়ের শিকার স্কুলছাত্রী সারজানা বেগম বিষয়টি তার পরিবারকে জানায়। ঘটনাটি জানার পর স্কুলছাত্রীর পিতা আবদুর রহিম বখাটে ডালিমের দুলা ভাই মেন্দি মিয়ার কাছে এ ঘটনার বিচার প্রার্থী হন। এতে বখাটেরা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। অবশেষে শুক্রবার বেলা ২টার দিকে বিচার চাওয়ার কারণে মেন্দি মিয়ার ভাতিজা বখাটে লাল মিয়া ও হাসানের নেতৃত্বে একদল লোক স্কুলছাত্রীর বাড়িতে এসে হামলা চালায়। হামলায় স্কুলছাত্রী সারজানা বেগম (১৫), তার পিতা আবদুর রহিম (৪০), তার মা রুসনা বেগম (৩৫) ও ভাই সাজন মিয়া (১৯) সহ একই পরিবারের ৪ জন আহত হন এবং বাড়িঘর ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। পরে আহতদের জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হয়।
এ ব্যাপারে আহত স্কুলছাত্রীর পিতা আবদুর রহিম স্থানীয় আঞ্চলিক ভাষায় বলেন, খারাপ পুয়া ডালিমের কারণে আমার ফুরি স্কুলে যাইতো পারে না। আমি বিচার লইয়া গেছলাম করি তারা আমার বাড়িত আইয়া আমরারে মাইরা-ধইয়া বাড়িঘর ভাঙ্গিলাইছে।
আহত স্কুলছাত্রীর ভাই সাজন মিয়া বলেন, ইভটিজিংয়ের বিচার নিয়ে যাওয়ায় তারা আমাদের বাড়িতে এসে মারপিট করে বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করেছে। এ ঘটনায় জগন্নাথপুর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তিুত চলছে।