নবীগঞ্জে বেগম খালেদা জিয়ার পথ সভা ভন্ডুল

তোফাজ্জল হোসেন নবীগঞ্জ থেকে :
ব্যাপক প্রচার প্রচারণা করা হলেও শেষ পর্যন্ত ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি কিবরিয়া চত্বর ও জনতার বাজারে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার পথ সভা অনুষ্ঠিত হয়নি। প্রিয় নেত্রীকে এক নজর দেখার ও তার কথা শুনার জন্য সকাল থেকেই হাজার হাজার নেতাকর্মী ও সাধারণ জনতা আউশকান্দি কিবরিয়া চত্বর ও জনতার বাজারে অবস্থান নিলেও পুলিশের অনুমতি না নিয়ে পেন্ডেল তৈরী করার কারণে পুলিশের অনুরোধে বিএনপি দলীয় নেতাকর্মীরাই পেন্ডেল ভেঙ্গে ফেলে এবং অপর দিকে মহাসড়কের জনতার বাজারে নান্টু গ্র“ফের অপর একটি পেন্ডেলও ভেঙ্গে ফেলার কারণে কোন স্থানেই বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার পথ সভা অনুষ্ঠিত হয়নি। এতে সাধারণ নেতাকর্মীরা ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করেন।
সোমবার ৫ ফেব্র“য়ারী সিলেট হযরত শাহজালাল (রহ.) এর মাজার জিয়ারত করতে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার আগমন উপলক্ষে যাত্রা পথে আউশকান্দি কিবরিয়া চত্বরে শেখ সুজাত সমর্থিত বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা পথ সভার আয়োজন করে। এজন্য কিবরিয়া চত্বরে একটি সভা মঞ্চ তৈরি করা হয়। এ দিকে সকাল থেকে বিএনপির নেতাকর্মীরা চত্বরে জড়ো হয়ে অবস্থান নিলে পুলিশ এসে অনুমতি না নিয়ে মঞ্চ তৈরি করার কারনে তাদেরকে মঞ্চ ও মাইক খুলে নেয়ার নির্দেশ দিলে নেতাকর্মীরা মঞ্চ ও মাইক খুলে নেয়। পরে তাদের নেত্রীকে শুভেচ্ছা জানাতে দীর্ঘ লাইন ধরে বিভিন্ন শে¬াগান দিতে থাকে। এ নিয়ে নেতা-কর্মীদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করে। এছাড়া বিএনপি’র অপর শাহ মোজাম্মেল নান্টু গ্র“পের নেতা কর্মীরা মহাসড়কের জনতার বাজারে পথ সভা করার জন্য মঞ্চ নির্মান করলেও সেখানে অনুমতি না থাকার কারণে পুলিশ মঞ্চ ভেঙ্গে দেয়। কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই বেলা পৌনে ৩ টায় জনতার বাজার এবং ৩ টার দিকে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া আউশকান্দি কিবরিয়া চত্বর অতিক্রম করেন। এ সময় দলের নেতা-কর্মীরা বিভিন্ন পে¬কার্ড, ব্যানার, ফেস্টুন হাতে নিয়ে তাদের নেত্রীকে শুভেচ্ছা জানান। এ সময় আউশকান্দিতে নবীগঞ্জ-বাহুবলের সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব শেখ সুজাত মিয়া, পৌর বিএনপির সভাপতি ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব ছাবির আহমদ চৌধুরী, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান সেফুসহ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন এবং জনতার বাজারে নান্টু গ্র“পের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নবীগঞ্জ পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন, উপজেলা ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও পৌর বিএনপির সাবেক আহবায়ক তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি মজিদুল করিম মজিদ, সাবেক মেম্বার ও মোজাম্মেল নান্টুর ভাই শাহ মোস্তাকিম আলী প্রমুখ। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্য (ওসি) এস এম আতাউর রহমান বলেন, প্রশাসনিক অনুমিত না থাকা ও মহাসড়ক যানজটমুক্ত রাখতে এবং বিএনপি নেত্রীর নিরাপত্তার স্বার্থে তাদের নির্মিত সভা মঞ্চ ভেঙ্গে ফেলার অনুরোধ জানালে তারা তাদের মঞ্চ তুলে নেয়। এ ব্যাপারে সাবেক এমপি আলহাজ্ব শেখ সুজাত মিয়া বলেন, পুলিশের বাধার কারণে আমরা পথ সভা করতে পারিনি। আমাদের স্টেইজ ভেঙ্গে ফেলা হয় এবং মাইক খুলে নেয়া হয়। রাতে আমাদের প্রচারণার গাড়িসহ মাইক থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। আমরা বারবার পুলিশকে অনুরোধ করেও কোন অনুমতি পাইনি। তার পরেও হাজার হাজার নেতাকর্মী শত বাধা উপেক্ষা করে নেত্রীকে শুভেচ্ছা জানানোর জন্য আসায় সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানান। অপরদিকে নবীগঞ্জের বিএনপির আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশী যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো বিএনপির সভাপতি শাহ মোজাম্মেল নান্টু’র পক্ষ থেকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের জনতার বাজারে বিএনপির আরেক অংশ নেত্রীর আগমনে জনতার বাজারে জড়ো হওয়ায় তাদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। এছাড়া নান্টুকে এমপি চাই লিখা ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে নান্টু গ্র“ফের চমক ছিলো শত শত গাড়ীতে করে মহড়া দেয়ার ঘটনা।