এমপি এহিয়া চাঁদা আদায় করে লুটপাটের রাজত্ব শুরু করেছেন – শফিক চৌধুরী

ওসমানীনগর থেকে সংবাদদাতা :
ওসমানীনগরের উমরপুর ইউনিয়নের মজলিশপুর গ্রামে প্রায় এক কোটি টাকা ব্যয়ে বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করা হয়েছে। প্রায় ৫৩৪ মিটার দৈর্ঘের দুইটি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের মাধ্যমে ১৬৬টি পরিবারের মধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে। শুভ বিদ্যুতায়ন উপলক্ষে মজলিশপুর ও খাসকোপা গ্রামবাসীর উদ্যোগে বুধবার বিকেলে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফিকুর রহমান বলেছেন, আওয়ামীলীগ সরকারের অঙ্গীকার ঘরে-ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া। এরই ধারাবাহিকতায় মজলিশপুর গ্রাম আজ বিদ্যুতায়িত হয়েছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় গেলে মানুষের মুখে হাসি ফুটে। আর জামায়াত-বিএনপি ক্ষমতায় গেলে দুর্নীতি, অনিয়ম ও জ্বালাও পোড়াও রাজনীতির করে দেশে লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করে। বিএনপি-জামায়াত জঙ্গিবাদ ও মৌলবাদকে লালন-পালন করে দেশকে দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ান করে বিশ্বের কাছে জাতিকে ছোট করে। তিনি বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনে গণতন্ত্র ও সংবিধান রক্ষার স্বার্থে নেত্রীর প্রতি অনুগত দেখিয়ে আমি মনোনয়ন প্রত্যাহার করায় সিলেট-২ আসনে জাতীয় পার্টির এহিয়া চৌধুরীকে আপনারা ভোট দিয়ে এমপি বানিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি এমপি হওয়ার পর থেকে জামায়াত-বিএনপির সাথে আঁতাতের মাধ্যমে বালাগঞ্জ, ওসমানীনগর ও বিশ্বনাথে তাঁর নিজস্ব দালাল সৃষ্টি করেছেন। সেই দালালদের মাধ্যমে টিআর, কাবিখা, সৌর বিদ্যুৎসহ সরকারের যাবতীয় উন্নয়ন প্রকল্প থেকে চাঁদা আদায় করে লুটপাট করছেন। ফলে সারা দেশব্যাপি আওয়ামীলীগ সরকারের মাধ্যমে উন্নয়নের জোয়ার বইলেও বালাগঞ্জ, ওসমানীনগর ও বিশ্বনাথের মানুষ উন্নয়ন বঞ্চিত হচ্ছে। নৌকায় ভোট দিয়ে এদেশের মানুষ স্বাধীনাতা পেয়েছে, দেশ আজ জঙ্গীবাদ মুক্ত হয়েছে। জাতির জনকের স্বপ্ন বাস্তবায়নে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে এবং ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্ত দেশ গড়তে আবারো নৌকায় ভোট দেওয়া আহবান জানান তিনি।
উমরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়ার সভাপতিত্বে জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ১এর আওতাধীন বালাগঞ্জ (কাশিকাপন) জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) জহিরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান চৌধুরী নাজলু, আওয়ামীলীগ নেতা দবির মিয়া, হোসাইন আহমদ ছইল, সৈয়দ নেছাওর আলী, উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দিলদার আলী।
ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা আনোয়ার আলী ও যুবলীগ নেতা মাহবুব আহমদের যৌথ পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, যুবলীগ নেতা মনির মিয়া, মন্নান মিয়া, স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা রফিক মিয়া, আব্দুর রহিম, ইউপি সদস্য রুকন আহমদ চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা নূরুল ইসলাম, নূর মিয়া, বাবুল মিয়া, হাজী জমসেদ আলী, মফশ্বির আলী, বাদশা মিয়া, চুনু মিয়া, রুহেল মিয়া, রানা মিয়া, নজরুল ইসলাম, আনহার আলী, আইয়ব আলী, দুদু মিয়া, প্রভাত দেব নাথ, রবি সূত্রধর, লক্ষণ সূত্রধর ও আব্দুস ছত্তার প্রমুখ।