গোলাপগঞ্জে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় আহত কৃষকের মৃত্যু

গোলাপগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা :
গোলাপগঞ্জে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় আব্দুল মালিক পটল (৫০) নামে আহত হওয়া এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। তবে স্থানীয় পুলিশ এ বিষয়ে কিছুই জানে না! আহত অন্যজন সিলেট ওসমানীতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। নিহতের ময়না তদন্ত ছাড়াই দাফনও সম্পন্ন হয়েছে। নিহত কৃষক উপজেলার আমুড়া ইউপির শিলঘাট লম্বাগাঁও গ্রামের মৃত আব্বাছ উদ্দিনের ছেলে। নিহত কৃষকের আমিনা বেগম (১০) ও তাহমিনা বেগম (৭) নামে দুই কন্যা সন্তান রয়েছে। আমিনা আমুড়া ২নং-শিলঘাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী ও তাহমিনা বেগম একই স্কুলের প্রথম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। গত শনিবারের ঘটনা। চলতি মাসের ২৭ জানুয়ারী শনিবার রাত ৮টায় উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ ইউপির রায়গড় বড়গুল নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ও আহত ব্যক্তি স্থানীয় একটি বাজার থেকে পায়ে হেটে বাড়ী ফিরছিলেন। এমন সময় মোটরসাইকেল নিয়ে দ্রুত গতিতে আসা আব্দু শহিদ (৩৫) নিহত ও আহত ব্যক্তিকে ধাক্কা দেন। এ সময় তারা মাটিতে লুটিয়ে পড়লে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। রবিবার রাত সাড়ে ৮টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আব্দুল মালিক পটলের মৃত্যু ঘটে। সোমবার দুপুর ২টায় ময়না তদন্ত ছাড়াই নিহত আব্দুল মালিক পটলের জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়। এ ঘটনায় আহত কাছির আলী (৪৫) এখনও সিলেট ওসমানীতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। তিনি আমুড়া ইউপির শিলঘাট লম্বাগাঁও গ্রামের মৃত তাহির আলীর ছেলে। নিহত ও আহত পথচারীকে ধাক্কা দেওয়া মোটরসাইকেল চালক আমুড়া ইউপির শিলঘাট সোনাপাড়া গ্রামের উমর আলীর ছেলে। তার মোটরসাইকেলেরে ধাক্কায় একজন নিহত হওয়া খবর শুনে সে পলাতক রয়েছে। এ ঘটনার তথ্যে নিশ্চিত করেছেন পশ্চিম আমুড়া ইউপির ৯নং-ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য কুটি মিয়া। তিনি বলেন এখনও কোন মামলা হয়নি। নিহত পরিবারের লোকজন খুবই দরিদ্র। আহত ব্যক্তিও মৃত্যুও সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ওসি একেএম ফজলুল হক শিবলীর সাথে আলাপ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কিছু জানেন না বলে জানান। তিনি প্রতিবেদককে বলেন এই প্রথম বিষয়টি শুনলাম। এ রিপোর্ট পর্যন্ত ধাক্কা দেয়া মোটরসাইকেলের নাম্বার সংগ্রহ করা যায়ািন।