Tag:

হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে ইতালি প্রবাসী যুবক নিখোঁজ

মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলার সন্তান ও ইতালি ফেরত প্রবাসী জাহাঙ্গীর হোসেন (বাবলু) ঢাকা হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে নিখোঁজ হয়েছেন।
বাবলুকে উদ্ধারের জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে অর্থমন্ত্রী, শিক্ষামন্ত্রী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিমানমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
ইতালি থেকে দেশের উদেশ্যে যাত্রা করলেও এখন খোঁজ মিলছে না মো. জাহাঙ্গীর হোসেন (বাবলু) যুবক একজন প্রবাসী তরুণের। তার গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলায়। সে বিয়ানীবাজার উপজেলার কসবা গ্রামে নানার বাড়িতে থেকে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করার পর মদন মোহন কলেজে অনার্স পড়ার সময় ইউরোপে চলে যান। তিনি ইতালীর স্থায়ী বাসিন্দা।
বাবলুর পিতা জুড়ীর বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী আব্দুল হাছিব জানান, বাবলু ৫ জানুয়ারি ইতালির ভেনিস শহর থেকে এমিরেট এয়ারলাইন্সের ইকে ৫৮২ ফ্লাইটে যাত্রা করেন। দুবাই হয়ে পরদিন ৬ জুলাই শনিবার সকাল সোয়া ১০টায় তার ঢাকা হযরত শাহজালাল বিমান বন্দরে পৌঁছার কথা ছিল। তারপর ঐদিন বাংলাদেশ বিমানের বিজি ৬০১ পৌনে একটার অভ্যন্তরীণ ফ্লাইইটে সিলেটে পৌঁছার কথা ছিল দুপুর দেড়টায়। বাবলু দুবাই পৌঁছে তার পিতার সঙ্গে ফোনে কথাও বলেছিল। কিন্তু এরপর আর তার কোনো খোঁজ পাচ্ছেন না তার পরিবার। সারা দিন সিলেট ওসমানী বিমান বন্দরে স্বজনরা অপেক্ষার পর তার কোনো খোঁজ না পেয়ে এবং যোগাযোগ করতে না পেরে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন।
বাবলু কোথায় থেকে নিখোঁজ হয়েছেন, কীভাবে হয়েছেন কিছুই জানা যাচ্ছে না।
এদিকে, বিমানবন্দর থানা নিখোঁজের ব্যাপারে সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।
দেশে ফিরে বাবলু’র বিয়ে করার কথা ছিল। কনেও ঠিক করা হয়েছিল। কিন্তু ওই পরিবারে আনন্দের বদলে এখন চরম দুঃসময় নেমে এসেছে।
এদিকে বাবলুর ইতালী প্রবাসী বড় ভাই ইকবাল হোসেন শিপলু জানিয়েছেন, জাহাঙ্গীর হোসেন (বাবলু) ঢাকা হযরত শাহজালাল বিমান বন্দর অবতরণ করেছেন এ তথ্যটি ভেনিসের এমিরেট এয়ারলাইন্সের কর্তৃপক্ষ তাকে নিশ্চিত করেছেন।
জাহাঙ্গীর হোসেন (বাবলু) সম্পর্কে ঢাকা হযরত শাহজালাল বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ এখনও পর্যন্ত কোন সদুত্তর দিতে পারিনি। বাবলুর সন্ধানে তার অপর আরেক ভাই ও স্বজনরা মিলে ঢাকার হযরত শাহজালাল বিমান বন্দরে ইমিগ্রেশন, কাস্টমস, পুলিশ ও এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষের কাছে বারবার ধর্না দিচ্ছেন। কারো কাছ থেকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা ও সঠিক জবাব পাওয়া যাচ্ছে না। এদিকে বাবলুর জন্য বার বার মূর্ছা যাচ্ছেন বাবা-মা। সবাই বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন। বিজ্ঞপ্তি