Tag:

ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালীতে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে একজন খুন

স্টাফ রিপোর্টার :
নগরীর কোর্ট পয়েন্টে দলীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শোভাযাত্রায় ছাত্রদলের দুই পক্ষে সংঘর্ষে সাবেক এক ছাত্রদল নেতা খুন হয়েছেন। নিহত আবুল হাসনাত শিমু (২৫) মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক। গতকাল সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত হওয়ার পর ওসমানী হাসপাতালে নেয়া হয় শিমুকে। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত শিমু নগরীর শাহী ঈদগাহ এলাকার আব্দুল আজিজের পুত্র। তিনি ছাত্রদলের কাজী মেরাজ গ্রুপের নেতা বলে জানা গেছে। এতে আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১০ জন।
পুলিশ জানায়, সোমবার দুপুরে ৩৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে নগরীর কোর্ট পয়েন্ট থেকে মিছিল বের করে জেলা ও মহানগর ছাত্রদল। মিছিলে আধিপত্য নিয়ে ছাত্রদলের একটি গ্র“প শিমুকে ছুরিকাঘাত করে। এ নিয়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়ায়। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতদের কয়েকজনকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। পুলিশ আরো জানায়, শোভাযাত্রার সময় সামনে দাঁড়ানো নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়। একপর্যায়ে তারা হাতাহাতিতে লিপ্ত হয়। এ সময় ছাত্রদল নেতা শিমুর বুকে ছুরিকাঘাত করা হয়। পরে অন্যান্য ছাত্রদল নেতাকর্মীরা তাকে দ্রুত ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
ছাত্রদলের একটি সূত্র নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, সিলেটে ছাত্রদলের খাসদরীর-সুবিদবাজার এলাকা মিলে একটি এবং শাহী ঈদগাহ-মিরবক্সটুলা মিলে সৃষ্টি হয়েছে আরেকটি উপ গ্র“পের। এই দুই উপ গ্র“পের মধ্যে সংঘর্ষে মারা গেছেন শিমু। শিমু শাহী ঈদগাহ-মিরবক্সটুলা গ্র“পের অনুসারী ছিল বলে ওই সূত্র জানিয়েছে।
কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি গৌছুল হোসেন জানান, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর মিছিলে ছাত্রদলের দুই গ্র“পে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে ৮/১০ আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় বিকেলে শিমু নামে একজন মারা যান। এঘটনায় কাউকে আটক করা যায়নি বা কোনো মামলাও হয়নি বলে জানান ওসি। এ ঘটনার পর যে কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ সতর্কাবস্থায় রয়েছে।