জাফলংয়ে পাথর তুলতে গিয়ে কিশোরীর মৃত্যুর ঘটনায় ৬ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা

গোয়াইনঘাট থেকে সংবাদদাতা :
জাফলংয়ে মন্দিরের জুম এলাকা থেকে অবৈধভাবে পাথর তুলতে গিয়ে পাড় ধসে মাটি চাপায় কিশোরী নিহতের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সোমবার রাতে নিহত শম্পা দাশ (চম্পা)’র মা রেখা দাশ বাদী হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলার প্রধান আসামী করা হয় পাথর উত্তোলনের গর্তের মালিক খলিলুর রহমানকে। এছাড়াও মামলায় তার ব্যবসায়ী সহযোগী হিসেবে ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা নানু মিয়াসহ ৬ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত আরও ৫ জনকে আসামী করা হয়। এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার এজাহার নামীয় আসামী নানু মিয়াকে আটকের পর গতকাল মঙ্গলবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছে থানা পুলিশ।
এ ব্যাপারে ওসি মো. দেলওয়ার হোসেন জানান নিহত কিশোরীর মা বাদী হয়ে ১১ জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলার এজাহার নামীয় এক ব্যক্তিকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকী আসামীদের আটকে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
প্রসঙ্গত, সোমবার সকালে জাফলংয়ের মন্দিরের জুম এলাকায় পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে পাড় ধসে মাটি চাপা পড়ে শম্পা দাস (চম্পা) নামের এক কিশোরী নিহত হন। এঘটনায় আহত হয় আরও চারজন।