কানাইঘাটে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে আহত ব্যক্তির মৃত্যু, গ্রেফতার ২

কানাইঘাট থেকে সংবাদদাতা :
কানাইঘাট দীঘিরপার ইউপির দক্ষিণ ঠাকুরেরমাটি গ্রামে ধরাকে কেন্দ্র করে গত বুধবার প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত জয়নাল আবেদীন (২৮) চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার বেলা ১টার দিকে সিওমেক হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন। এ ঘটনায় কানাইঘাট থানা পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে একই গ্রামের মৃত আহমদ আলীর স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৫৮) ও তার মেয়ে কুলসুমা বেগম (৩২)কে গতকাল বেলা ২টায় তাদের নিজ বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে। থানায় আহত অবস্থায় মৃত্যুবরণকারী জয়নাল আবেদীনের পরিবারের পক্ষ থেকে গ্রেফতারকৃত দু’জন সহ জড়িতদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার ঠাকুরেমাটি গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে তানভীর আহমদ (১৫) তার বাড়ীর পাশের খালের একাংশে মাছ ধরার জন্য চারপাশ বাঁধ দিয়ে রাখে। বাঁধ দেয়ার কিছুক্ষণ পর একই গ্রামের প্রতিবেশী মৃত আহমদ আলীর স্ত্রী আনোয়ারা বেগমের নাতি তানভীর আহমদের বাঁধ দেয়া জায়গা থেকে মাছ ধরতে থাকলে তানভীর সহ তার পরিবারের লোকজন এতে বাধা প্রদান করলে উত্তেজিত হয়ে প্রতিপক্ষ আনোয়ারা বেগম (৫৮), তার মেয়ে কুলসুমা বেগম (৩২), ছেলে রহমত আলী (৩৫), মনা ময়া (২৮), জামাতা জকিগঞ্জ উপজেলার বারহাল ইউপির খিলগ্রামের জামিল (৩২) দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে মতিউর রহমান সহ তার পরিবারের লোকজনের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় মতিউর রহমান (৬০), তার স্ত্রী আফিয়া বেগম (৫০), মেয়ে হোসনে আরা বেগম (৩৫) ও ছেলে জয়নাল আবেদীন (২৮) গুরুতর আহত হন। আহতের মধ্যে জয়নাল আবেদীনকে আশংকা জনক অবস্থায় সিওমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হলে গতকাল তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে মারা যান।
থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ নুনু মিয়া জানিয়েছেন, চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহত জয়নাল আবেদীনের মৃত্যুর ঘটনায় দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। থানায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।