সিলেটে ৪টি লায়ন্স ক্লাবের যৌথ অনুষ্ঠান ॥ লায়ন্স ক্লাব দরিদ্র লক্ষাধিক মানুষকে ফ্রি চিকিৎসা দিয়ে চোখে দেখার সুযোগ করেছে

লায়ন্স ক্লাবস্ ইন্টারন্যাশনাল জেলা ৩১৫, বি-১ বাংলাদেশ জেলা গভর্ণর লায়ন এডভোকেট কাজী একলাছুর রহমান বলেছেন, লায়ন ইজমের মাধ্যমে জীবনের চলার পথ সুগম হওয়ার পাশাপাশি দেশের সুবিধা বঞ্চিত মানুষের কল্যাণে কাজ করার সুযোগ সৃষ্টি হয়। লায়ন্স ক্লাবগুলো ইতিপূর্বে দেশের দরিদ্র বঞ্চিত লক্ষাধিক মানুষকে ফ্রি চিকিৎসা দিয়ে চোখে দেখার সুযোগ করে দিয়েছে। শুধু তাই নয়, আর্তমানবতার কল্যাণে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, লায়নরা কিছু পাওয়ার জন্য ক্লাবে আসেননি, দেশ ও জাতিকে কিছু দেওয়ার জন্যই এসেছেন। পুরানো লায়নদের অনুসরণ করে নতুন লায়নদের এগিয়ে যেতে হবে। মানবসেবার কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করতে সকল লায়নবৃন্দদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান।
তিনি গত শুক্রবার রাতে সিলেট নগরীর পূর্ব জিন্দাবাজারস্থ ইটওপিয়া চাইনিজ রেস্টুরেন্টে ৪টি লায়ন্স ক্লাবের জয়েন্ট ইনস্টোলেশন ও চার্টার প্রেজেন্টেশন অব লায়ন্স ক্লাব অব সিলেট রিজেন্সী, লায়ন্স ক্লাব অব সিলেট সুরমা, লায়ন্স ক্লাব অব সিলেট ইমিনেন্ট, লায়ন্স ক্লাব অব সিলেট সিটির যৌথ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
লায়ন নাজনীন হোসেনের সভাপতিত্বে ও লায়ন মনছুর আলম চৌধুরীর পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা ৩১৫, বি-১ বাংলাদেশ এর দ্বিতীয় ভাইস গভর্ণর লায়ন হেলেন নাসরিন আক্তার এমজেএফ। আমন্ত্রিত অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রাক্তন জেলা গভর্ণর লায়ন মুজিবুল হক চুন্নু, লায়ন গাজী আবুল কালাম, লায়ন এম এ সালাহউদ্দিন, লায়ন শফিকুল আজম ভূঁইয়া সোয়েব। বক্তব্য রাখেন লায়ন ডা. এ হাসান, লায়ন খন্দকার শিপার আহমদ, লায়ন আছমা কামরান, লায়ন রফিকুল বারী মুক্তা, লায়ন নূরে রহমান, লায়ন মশিউর আহমদ, লায়ন ইমরান উদ্দিন মাহমুদ, লায়ন ফরিদা ইয়াসমিন। উপস্থিত ছিলেন লায়ন আবুল কাসেম বাবু, লায়ন তহুরা, লায়ন মোহাম্মদ আলী প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি