দুই জোড়া চোখ

আবিদ আল আহ্সান

আপনি যখন সাগরপারে
ঢেউয়ের সাথে চলতে ছিলেন
মনের কথা কেমন যেন
মনের সাথেই বলতে ছিলেন।

আমি তখন এগিয়ে গিয়ে
হাতটি ধরে কাছে টেনে
মনের কথা সব শুনেছি
সাগর থেকে মুক্তো এনে।

আপনি তখন মুক্তো পেয়ে
দুঃখ বিষাদ সব ভুলেছেন
নতুন করে বাঁচতে শিখে
আমার বীণায় সুর তুলেছেন।

সুরের ঘোরে ভুবন ভরে
মাতিয়ে গেছি ফুলের পাড়া
আপনি-আমি আমরা দুজন
হইছি কেমন আত্মহারা।

উড়াই ঘুড়ি-জীবন ঘুড়ি
উড়ছে ঘুড়ি দারুণ বেগে
ঘুড়ির সাথে রঙিন স্বপন
দুলছে কভু বাতাস লেগে।

আকাশ জুড়ে মেঘের বহর
হঠাৎ যেন ঘূর্ণি এলো
দমকা হাওয়ায় ছিঁড়লো সূতো
ধুলোয় আকাশ এলোমেলো।

কোথায় ঘুড়ি যায় না দেখা
হয়তো গেছে নিচে পড়ে
আপনি-আমি মুক্তো কুড়োই
এখন দুজন সেই সাগরে।

কেউ কারো নই তবুও আপন
ঢেউয়ের মতো জীবন চলে
মুক্তো আনার অতীত ভেবে
চোখ ভরে যায় দুখের জলে।

একলা সাগর, আপনি-আমি
দুই জোড়া চোখ আকাশ পানে
আমার বীণাও হারিয়ে গেছে
সেদিন সেই সে ঝড়-তুফানে।

বলুন দেখি আপনি কি আজ
ভুলেই গেছেন সে সব স্মৃতি
নাকি আবার অধিক শোকে
জীবন পাতার টানেন ইতি?

বলুন দেখি কথার কথা
বলতে পারেন ইচ্ছে মতো
বলতে পারেন আগের সে সব
মুক্তো কেমন দারুণ হতো!

শোনেন তবে আমিই বলি
আমার কথা মনের কথা
আপনি আমি গাছের ডালে
ছড়িয়ে থাকা স্বর্ণলতা।

আমার মতো আপনাকে আর
কেইবা নেবে আপন করে
আপনি ছিলেন আপনি আছেন
আপনি রবেন জীবন ভরে।