জাগার আগে

জালাল জয়

মৃত্যু আমায়
বাঁচতে শেখায়
বাঁচতে গিয়ে
জীবন পাতায়

মৃত্যু আমায়
স্বপ্ন দেখায়
স্বপ্ন আমায়
বাঁচতে শেখায়

বাঁচতে গিয়ে
যুদ্ধ করি
সৈনিক হাতে
অস্ত্র ধরি

বুলেট ছুঁড়ে
কাব্য লিখি
দিনরজনী
বাঁচতে শিখি

যুদ্ধ জীবন
যুদ্ধে মরণ
যুদ্ধ বিনে
শুধুই ক্ষরণ

বীর জননী
তুমি আমার
রক্ত দিয়ে
ভাঙবো পাহাড়

রক্ত নাশে
অস্ত্র হাসে
বিজয় এনে
মেঘের কোলে

আবার আমি
বাঁচতে শিখি
মৃত্যু তবুও
ডাক দিয়ে যায়

পিছু পিছন
ছুটে চলে
যখন তখন
আলোর জলে

ভেসে ভেসে
প্রাণে ভাসায়
দগ্ধ অনল
কেবল হাসায়

মৃত্যু তুমি
কত আপন
বুঝলে না হয়
অতি গোপন

আপন যত
কালকে ছিলো
আজকে সবি
পর যে হলো

কীসের নেশায়
জ্বলে ওঠি
দগ্ধ চোখে
জ্বালায় কাঠি

হায় রে হায়
মরণ আমার
পেলো না তো
সময় রে আর

যা দিয়েছি
বন্ধু তোমায়
মনে রেখো
একটু আমায়

ভুবন মাঝি
দিয়ে বিদায়
আপন ঘরটা
ছেড়ে আজি

চলে এলাম
একলা ঘরে
নাইরে কেহ
এই কবরে

কেমন আঁধার
কাঁপে শরীর
ভাবতে গিয়ে
জাগি আবার